Friday , March 22 2019
সর্বশেষ
Home / পোলট্রি / পোল্ট্রির মাংস ও ডিম রপ্তানির জন্য উদ্যোগ নিচ্ছে সরকার – সমাপনী অনুষ্ঠানে বক্তারা

পোল্ট্রির মাংস ও ডিম রপ্তানির জন্য উদ্যোগ নিচ্ছে সরকার – সমাপনী অনুষ্ঠানে বক্তারা

পর্দা নামলো আন্তর্জাতিক পোল্ট্রি শো-২০১৯ এর

২২ দেশের অংশগ্রহণে বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছিল তিন দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক পোল্ট্রি শো-২০১৯, শনিবার সমাপনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে শেষ হলো এবারের আয়োজন । রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় এ সমাপনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

আন্তর্জাতিক পোল্ট্রি-শো-২০১৯ এর সমাপনী দিনে বক্তারা জানান, পোল্ট্রির মাংস ও ডিম রপ্তানির জন্য উদ্যোগ নিচ্ছে সরকার। অভ্যন্তরীণ চাহিদা মিটিয়ে এখন বিদেশে বিশেষ করে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে পোল্ট্রি পণ্য রপ্তানী সম্ভাবনার হাতছানি দিচ্ছে। এই সম্ভাবনা কাজে লাগাতে ইতোমধ্যেই বেশ কিছু ব্যবস্থাও গ্রহণ করা হয়েছে। আগামী ২০২৪ সাল নাগাদ পোল্ট্রি পণ্য রপ্তানি শুরু হবে।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. আশরাফ আলী খান খসরু এমপি বলেন, বর্তমান সরকার কৃষি ও পোল্ট্রিবান্ধব। এ খাতের উন্নয়নে জাতীয় প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন নীতিমালা ও পোল্ট্রি উন্নয়ন নীতিমালা প্রণয়ন করেছে। নিরাপদ খাদ্যের উৎপাদন নিশ্চিত করতে মৎস্য ও পশুখাদ্য আইন-২০১০ ও নিরাপদ খাদ্য আইন-২০১৩ প্রণয়ন করেছে।

পোল্ট্রি খাদ্য উপকরণের ক্রমাগত মূল্যবৃদ্ধি, নতুন নতুন রোগ-বালাইয়ের প্রাদুর্ভার, ওষুধের কার্যকারিতা কমে যাওয়া প্রভৃতি পোল্ট্রি শিল্পের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ বলে মন্তব্য করেন প্রতিমন্ত্রী।

বিশেষ অতিথি মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. রইছ উল আলম মন্ডল বলেন, ওষুধের কার্যকারিতা কমে যাওয়ার প্রেক্ষিতে এন্টিবায়োটিকের ব্যবহার যেন বেড়ে না যায় সেজন্য এখনই কার্যকর কৌশল নির্ধারণ করতে হবে।

ট্যানারির বর্জ্যরে বিরুদ্ধে পোল্ট্রি অ্যাসোসিয়েশন ও মিডিয়াকে যুক্ত করার, অবৈধ ফিড মিল উচ্ছেদে তিন মাসের ক্র্যাশ প্রোগ্রাম, সারাদেশে পোল্ট্রি খামার জরিপ শুরু করা, অবিলম্বে পোল্ট্রি উন্নয়ন বোর্ড গঠন এবং সারা বছর জুড়ে ডিম ও মাংসের নায্য মূল্য পাওয়ার নিশ্চয়তা চান মসিউর।

ওয়াপসা-বিবি’র সভাপতি শামসুল আরেফিন খালেদ বলেন, আগামী ২০২৪ সাল নাগাদ পোল্ট্রি পণ্য রপ্তানি শুরু হবে।

তিনি বলেন, বিভিন্ন দেশের মুসলমি অধ্যুষিত এলাকা এবং বিশেষ করে মধ্যপ্রাচ্যের মুসলিম দেশগুলোর হালাল মার্কেটে প্রবেশের সুযোগ আছে। এজন্য সরকার আন্তরিক, চেষ্টা করছে পোল্ট্রি শিল্প।

ওয়াপসা বাংলাদেশ শাখার সাধারণ সম্পাদক মো. মাহাবুব হাসান বলেন, প্রায় ১ লাখ দর্শনার্থী এবারের মেলা পরিদর্শন করেছেন। অপুষ্টির হার কমাতে ডিমকে কাজে লাগানোর তাগিদ দেন তিনি।

তিন দিনব্যাপী মেলায় বেস্ট স্টল হিসেবে প্রথম পুরস্কার পায় এসিআই লিমিটেড, দ্বিতীয় হয় নাহার এগ্রো কমপ্লেক্স এবং তৃতীয় হয় রেনাটা লি.।

About Editor

Check Also

শেকৃবি উপাচার্য ও শেকৃবিসাসের শুভেচ্ছা বিনিময়

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক, শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় : শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শেকৃবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *