Friday , March 22 2019
সর্বশেষ
Home / পোলট্রি / প্রদর্শকদের দৃষ্টিতে পোল্ট্রি মেলা

প্রদর্শকদের দৃষ্টিতে পোল্ট্রি মেলা

রাকিব খান, সিনিওর রিপোর্টারঃ মানুষের আমিষের ঘাটতি পূরণের লক্ষ্যে এদেশে একদিন শুরু হয়েছিল পোল্ট্রি শিল্পের যাত্রা। সেই যাত্রা এখন আরও দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলছে। তাইতো দেশে গড়ে উঠেছে ছোট, বড় অসংখ্য পোল্ট্রি খামার। কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হয়েছে দেশের বহু বেকারের। পাশাপাশি আমিষের ঘাটতি পূরণেও রেখেছে অভূতপূর্ব ভূমিকা। ‘মাছে – ভাতে বাঙালি ‘র পরিবর্তে যেন শ্লোগান হয়ে গেছে ‘ ডিম-মাংসে বাঙালি ‘। তবু এতো সফলতার পরেও বর্তমানে এই শিল্পে কখনও কখনও বেশ লোকসান গুনতে হচ্ছে খামারীদের।

দেশের পোল্ট্রি শিল্পকে ত্বরান্বিত করতে “ওয়ার্ল্ডস পোল্ট্রি সায়েন্স এ্যাসোসিয়েশন – বাংলাদেশ ব্রাঞ্চ” এবং “বাংলাদেশ পোল্ট্রি ইন্ডাস্ট্রিস সেন্ট্রাল কাউন্সিল” আয়োজন করেছে ১১ তম আন্তর্জাতিক পোল্ট্রি মেলা-২০১৯। রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরা (আইসিসিবি)-তে চলছে এই মেলা। এতে দেশি -বিদেশী অনেক প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করেছে। দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভিড়ও চোখে পড়ার মতো। যে কেউ বিনা টিকিটে একটি ভিজিটিং কার্ড সংগ্রহ করে মেলার যেকোন স্টল ঘুরে দেখতে পারে অনায়াসে।

কথা হলো ইব্রাতাস ট্রেডিং কোম্পানীর ম্যানেজার মোহাম্মর মুরাদের সাথে। তারা মূলত বিভিন্ন ফিড কোম্পানিকে আমিষের কাঁচামাল সরবরাহ করে থাকেন। ব্রাজিলসহ বিশ্বের বেশ কিছু দেশ থেকে তারা তাদের কাঁচামাল সরবরাহ করে থাকেন। তিনি মনে করেন, ২০২১ সালের আগে দেশের পোল্ট্রি শিল্পের অস্থিরতা কাটিয়ে উঠার সম্ভাবনা কম। তবে সরকার যথাযথ গুরুত্ব দিলে উত্তোরণ সম্ভব।

প্রোভেট রিসোর্সেস লিমিটেডের কমিউনিকেশন বিভাগের কো-অর্ডিনেটর খায়রুল বারী মনে করেন, সরকার যদি এই শিল্পে বিদ্যমান ভ্যাটের পরিমাণ হ্রাস করে তবে তা দেশে পোল্ট্রি শিল্পের সমৃদ্ধি বয়ে আনতে ভূমিকা রাখবে। তারা মূলত ফিড এডিটিভ জাতীয় পণ্য বিক্রি করেন। ব্রাজিল, যুক্তরাষ্ট্র, স্পেন, জার্মানি থেকে তারা তাদের কাঁচামাল সংগ্রহ করে থাকেন। দর্শনার্থীদের কাছে তাদের বার্তা মানসম্মত পণ্য নিশ্চিতকরণ।

নারিশের সেলস এন্ড মার্কেটিং (এ্যাকুয়া) ম্যানেজার মোঃ ওবাইদুল ইসলাম জানান একটু অন্য কথা। তিনি মনে করেন ইতিমধ্যে সরকার পোল্ট্রি শিল্পের অস্থিরতা কাটিয়ে উঠেছে। তারা মূলত ব্রয়লার, লেয়ার ও মাছের খাদ্য উৎপাদনের দিকে বেশি ঝোঁক দিচ্ছেন।

এসিআই গোদরেজ এগ্রোভেট প্রাইভেট লিমিটেডের সিনিয়র অফিসার সোহরাব হোসেন জানান, মানসম্মত প্রস্তুতকৃত খাদ্য খামারীদের হাতে পৌঁছে দেওয়াই তাদের মূল লক্ষ্য। চলমান অস্থিরতা কাটাতে সরকারের কার্যকরী নীতির কোনো বিকল্প নেই।


আফতাব বহুমুখী ফার্মস লিমিটেডের সেলস এন্ড মার্কেটিং বিভাগের ম্যানেজার এম এ রাজ্জাক মোল্লা মনে করেন এই শিল্পের অস্থিরতা দ্রুতই কেটে যাবে। চাহিদার তুলনায় ডিম ও পোল্ট্রি মাংসের সরবরাহ বেশি হওয়ায় সাময়িকভাবে অস্থিরতা বেড়েছে। দর্শনার্থীদের কাছে তাদের বার্তা হলো এ্যান্টিবায়োটিক মুক্ত নিরাপদ পণ্য সরবরাহ করা। তারা বিভিন্ন রকমের ফিড বিক্রি করে থাকেন। এমনকি এক দিনের বাচ্চাও বিক্রি করেন ।

গ্রোটেকের ডাঃ তায়েবুর রহমান একটু ভিন্নভাবেই বললেন সেক্টর নিয়ে । তিনি বলেন, ভালো খারাপ, উত্থান পতন সবখানেই আছে এবং থাকবে, কিন্তু এই শিল্পে সবচেয়ে বড় বাধা হচ্ছে বিভিন্ন ধরনের গুজব । ডিম খেলে এই হবে, ব্রয়লার মুরগির মাংস খেলে সেই হবে এইসব নিউজ অস্থিরতা বাড়ায় কিন্তু এসব নিউজের কোন ভিত্তি নেই । তাই গুজবে কান না দিয়ে সবাইকে প্রতিদিন একটি করে ডিম খাওয়া এবং নিশ্চিন্তে ব্রয়লার মাংস খাওয়ার সচেতনতা সৃষ্টি করতে চান এই মেলার মাধ্যমে ।

পিয়ারটপ লিমিটেডের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ডাঃ সৈয়দ মোস্তফা শামীম জানান, মেলাতে আমরা সাধারন জনগনকে একটা মেসেজই দিতে চাই তা হলো নিরাপদ প্রোটিন সরবরাহে আমরা বদ্ধ পরিকর । বিভিন্ন ধাপে ব্রয়লার মাংস ভোক্তাদের কাছে পৌছে দেওয়া হয় । খামারীরা হয়ত কোন প্রকার এন্টিবায়োটিক ছাড়া ব্রয়লার মাংস উৎপাদন করলো কিন্তু সেটি দূষিত হতে পারে জবাইয়ের সময়, আবার সেটি দূষিত হতে পারে ভোক্তা বাসায় মাংস কাটাকাটির সময়ে, তাই পুরো ব্যাপারটি নিয়েই সারা দেশব্যাপী সচেতনতা দরকার, মেলার মাধ্যমে সেটি আমরা সবাইকে দিতে চাই, পাশাপাশি পিয়ারটপ সারা দেশে প্রতিবছর অসংখ্য সেমিনার করে মানুষদের এই ব্যাপারে সচেতন করতে বদ্ধপরিকর ।

 

সর্বোপরি এটাই প্রতীয়মান হয় যে পোল্ট্রি শিল্প দেশের অন্যতম একটি উদীয়মান শিল্প। সাময়িক অস্থিরতা বিরাজ করলেও তা দীর্ঘস্থায়ী হবার সম্ভাবনা কম। দেশের স্বার্থে এই শিল্পের বিকাশ অত্যন্ত জরুরী। আর এটি করতেই এবারের মেলায় প্রায় সব প্রতিষ্ঠানই এগিয়ে আসছে, পাশাপাশি নিরাপদ ডিম ও মাংস এই বার্তাটি সবার কাছে পৌছে দেওয়া হচ্ছে । আশা করা হচ্ছে ২০৩০ সালের মধ্যে এন্টিবায়োটিক মুক্ত ডিম ও মুরগির মাংস পাবে এদেশবাসী ।

About Editor

Check Also

শেকৃবি উপাচার্য ও শেকৃবিসাসের শুভেচ্ছা বিনিময়

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক, শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় : শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শেকৃবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *