Wednesday , February 20 2019
সর্বশেষ
Home / প্রথম পাতা / ২০১৭-১৮ বর্ষের সেরা প্রেজেন্টার অধ্যাপক ড. মো. মাহবুব আলমের পেছনের গল্প…

২০১৭-১৮ বর্ষের সেরা প্রেজেন্টার অধ্যাপক ড. মো. মাহবুব আলমের পেছনের গল্প…

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় রিসার্চ সিস্টেম (বাউরেস) এর আয়োজনে গত ১৯ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সৈয়দ নজরুল ইসলাম সম্মেলন কক্ষে ২০১৭-১৮ বর্ষের গবেষণা অগ্রগতি বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয় । দুই দিনব্যাপী এই কর্মশালায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ৮টি ভেন্যুতে মোট ১৫ টি (১৩টি মৌখিক ও ২টি পোষ্টার) টেকনিক্যাল সেশন অনুষ্ঠিত হয়। ১৫টি টেকনিক্যাল সেশনে মোট ৪০০টি গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপিত হয়। প্রতিটি সেশন থেকে ১জন করে মোট ১৩ জনকে সেরা মৌখিক প্রেজেন্টার ও ৬ জনকে সেরা পোস্টার প্রেজেন্টার হিসেবে পুরস্কৃত করা হয়। এবছর সেরা প্রেজেন্টার হিসেবে পুরস্কৃত হয়েছেন মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. মাহবুব আলম । তিনি আন্তর্জাতিক মানদন্ডে অর্থাৎ এইচ ইনডেক্স অনুযায়ী বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) ভেটেরিনারি অনুষদে ১ম এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩য় সেরা গবেষক হিসেবে গতবছর সম্মাননা ও সনদ গ্রহন করেছিলেন ।

শিক্ষকতা জীবনে ২ যুগে পা… 

অধ্যাপক ড. মো. মাহবুব আলম ১৯৬৭ সালের ৩০ নভেম্বর জন্মগ্রহন করেন ।  কুমিল্লা বোর্ড থেকে ১৯৮৩ সালে এসএসসি পাস করে ভর্তি হন কমিল্লার সরকারী ভিক্টোরিয়া কলেজে; ১৯৮৫ সালে এইচএসসি পাস করে ভর্তি হন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে । ভেটেরিনারি সায়েন্স অনুষদ থেকে ১৯৯২ সালে ফার্স্ট ক্লাস থার্ড হয়ে ডিভিএম সম্পন্ন করেন । পরবর্তীতে ১৯৯৬ সালে মেডিসিনে ফার্স্ট ক্লাস ফার্স্ট হয়ে মাস্টার্স সম্পন্ন করেন । ২০০৩ সালে জাপানের Sapporo Medical University থেকে ডক্টরেট এবং একই প্রতিষ্ঠান থেকে ২০০৫ সালে পোস্ট-ডক্টরেট সম্পন্ন করেন ।

২৬ বছরের চাকুরী জীবন শুরু করেন ১৯৯৩ সালে বরিশালের ইয়্যুথ ট্রেনিং সেন্টারে সিনিওর ইন্সট্রাক্টর হিসেবে ।  একই বছরে Veterinary Assistant Surgeon হিসেবে DLS এর অধীনে চাকুরী শুরু করেন । পরবর্তীতে ১৯৯৫ সালের ৯ নভেম্বর বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভেটেরিনারি সায়েন্স অনুষদে মেডিসিন বিভাগের প্রভাষক হিসেবে শিক্ষকতা শুরু করেন । ১৯৯৮ সালে সহকারী অধ্যাপক, ২০০৪ সালে সহযোগী অধ্যাপক এবং ০৪ অক্টোবর, ২০১০ এ তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক হিসেবে পদোন্নতি পান ।

অধ্যাপক ড. মো. মাহবুব আলম সম্পর্কে কথা হয় উনার পিএইচডির ছাত্র ড. আবুল খায়েরের সাথে। তিনি বলেন, “এই বয়সেও গবেষনা কাজের প্রতি স্যারের যে আন্তরিকতা এবং আগ্রহ তা সত্যিই প্রশংসনীয়; কাজটি কতটা সুন্দরভাবে সম্পন্ন করা যায় এবং সেই সম্পন্ন হওয়া কাজকে প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে কিভাবে ফুটিয়ে তোলা যায় তা উনার কাছ থেকে শেখার আছে, সেটারই স্বীকৃতি পেলেন এবার । ড. খায়ের  আরোও বলেন, “স্যারের ছাত্র হিসেবে উনার এই অর্জনে অত্যন্ত খুশি এবং সামনের দিনগুলিতে স্যারের আরো বেশি সাফল্য প্রত্যাশা করছি” ।

About Editor

Check Also

রাসায়নিক দূষণ মুক্ত নিরাপদ ব্রয়লার উৎপাদনে খামারীদের সাথে ক্যাব’র তৃণমূল সভা অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ব্রয়লার মুরগি উৎপাদনে জীব ধারনামুলক নিরাপত্তা, কাঠামোগত নিরাপত্তা ও প্রায়োগিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *