Wednesday , February 20 2019
সর্বশেষ
Home / ক্যাম্পাস / সিভাসুতে অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো অ্যান্টমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্সকে প্রতিরোধ করা বিষয়ক শিক্ষাকে ভেটেরিনারি কারিকুলাতে সংযুক্ত করার প্রয়োজনীয়তা বিষয়ক একটি সেমিনার

সিভাসুতে অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো অ্যান্টমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্সকে প্রতিরোধ করা বিষয়ক শিক্ষাকে ভেটেরিনারি কারিকুলাতে সংযুক্ত করার প্রয়োজনীয়তা বিষয়ক একটি সেমিনার

মেহেরজান ইসলাম, সিভাসু প্রতিনিধিঃ

অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্স বর্তমানে বিশ্বের জন্যে একটি বহুল আলোচিত হুমকি। এই রেজিস্ট্যান্স জন্মাবার জন্যে এখন প্রাণীসহ মানুষেও বিভিন্ন ধরনের অ্যান্টিবায়োটিক ঔষধ হয়ে পড়েছে অকার্যকরী যা জীবন ও মৃত্যুর সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। বিজ্ঞানীরা আশংকা করছেন, এই ব্যাপারে সচেতনতা সৃষ্টি না হলে কিছুদিন প্রাণী এবং মানুষের উভয়কেই চিকিৎসা প্রদান করা হয়ে দুরূহ হয়ে পড়বে।

গত ২৯শে জানুয়ারি, ‘১৯ তারিখে চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি এন্ড অ্যানিমেল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয় অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্সকে নিয়ন্ত্রণ বিষয়ক শিক্ষাকে ভেটেরিনারি কারিকুলামে সংযুক্ত করা নিয়ে একটি সেমিনার। সেমিনারটি সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় অডিটরিয়ামে আয়োজন করা হয়।

অতিথিদের রেজিস্ট্রেশান সম্পন্নের পর পবিত্র কোরআন তিলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি শুরু করা হয়। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সেমিনারটির সিভাসুর পক্ষে কোঅরডিনেটর প্রফেসর মোহাম্মদ রাশেদুল আলম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রফেসর আব্দুল হালিম, ডিন, ভেটেরিনারি মেডিসিন অনুষদ; ড. এরিক ব্রুম, কান্ট্রি টিম লিডার, FAO-ECTAD, Bangladesh; ড. হিরেশ রঞ্জন ভৌমিক, DG-DLS এবং বাংলাদেশের OIE প্রতিনিধি ড. পেসাং শেরিং এবং ড. জিং ওয়াং। প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ে সম্মানিত উপাচার্য প্রফেসর গৌতম বুদ্ধ দাস। তার অনুপস্থিতিতে সেমিনারে এক্টিং ভিসি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রফেসর ড. নুরুল আবছার খান। এবং সেমিনারটিতে সভাপতিত্ব করেন প্রফেসর ড. মোঃ মাহমুদুল হাসান।

দুইটি পর্বে সেমিনারটি সম্পাদিত হয়। প্রথম সেশানে চেয়ারের দায়িত্বে ছিলেন প্রফেসর. ড. পরিতোষ কুমার বিশ্বাস। এই পর্বে OIE এর সংক্ষিপ্ত কার্যকলাপ, OIE Day 1 Competencies and Veterinary Education Core Curriculum, অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্স এর জন্য OIE এর স্ট্যান্ডার্ড গুলো অতিথিদের সামনে উপস্থাপন করেন ড. পেসাং শেরিং এবং ড. জিং ওয়াং।

দ্বিতীয় সেশানটিতে চেয়ারের দায়িত্ব পালন করেন প্রফেসর ড. এ. কে. এম. সাইফুদ্দীন এবং কো-চেয়ারের দায়িত্বে ছিলেন ড. শারমিন চৌধুরী। এই পর্বে ৫টি প্রেজেন্টশান উপস্থাপন করা হয়। অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্স নিয়ে জাতীয় পরিকল্পনা, OIE global database কার্যক্রম, অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্স প্রতিরোধে ভেটেরিনারি শিক্ষার ভূমিকা, অ্যান্টিবায়োটিকের উপযুক্ত প্রয়োগ, কিভাবে অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্স প্রতিরোধের উপায়সমূহ প্রেজেন্টেশানের মাধ্যমে তুলে ধরা হয়।

প্রেজেন্টশানগুলো উপস্থাপন করেন ড. মোঃ আবু সুফিয়ান, সহকারি পরিচালক, DLS, Dhaka; ড. জিং ওয়াং, আঞ্চলিক ভেটেরিনারি কর্মকর্তা, OIE, RRAP; প্রফেসর ড. মোঃ মাহমুদুল হাসান, বিভাগীয় প্রধান, ফিজিওলজি, বায়োকেমিষ্ট্রি এবং ফার্মাকোলজি ডিপার্টমেন্ট, সিভাসু; ড. মোঃ হাবিবুর রহমান, FAO-ECTAD; তানভীর আহমেদ, ইন্টার্ন ভেটেরিনারি স্টুডেন্ট।

উল্লেখ্য, এই সেমিনারটির সার্বিক অর্থায়নে ছিলো UK Government।

About Meherjan Islam

Check Also

নোবিপ্রবির ২য় সমাবর্তনে স্বর্ণপদক পাচ্ছেন ১১ জন

মোঃ আল আমীন (আকাশ), নোবিপ্রবি প্রতিনিধি নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোবিপ্রবি) ২৪শে ফেব্রুয়ারি দ্বিতীয় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *