Wednesday , February 20 2019
সর্বশেষ
Home / পোলট্রি / হাঁস পালন করে স্বাবলম্বী জয়পুরহাটের মনিরা খাতুন

হাঁস পালন করে স্বাবলম্বী জয়পুরহাটের মনিরা খাতুন

দিনমজুর স্বামীর সংসারে অভাব-অনটন লেগেই থাকতো। প্রবল ইচ্ছাশক্তি নিয়ে জয়পুরহাটের মনিরা খাতুন স্থানীয় জাকস ফাউন্ডেশনের সহযোগীতায় শুরু করেন বেইজিং জাতের হাঁস পালন। তিনি এলাকায় এখন একজন স্বাবলম্বী নারী হিসাবে পরিচিতি লাভ করেছেন।

সরকারের পাশাপাশি বে-সরকারি সংস্থার আয় বর্ধনমূলক কাজের সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়ে নারীরা এখন সমাজে মাথা উচুঁ করে দাড়ানোর সুযোগ পাচ্ছে। অভাবি মনিরা খাতুনের অভাবকে দূরে ঠেলে দিয়ে স্বাবলম্বীতার স্বপ্ন দেখিয়েছে স্থানীয় সংস্থা ’জাকস ফাউন্ডেশন”।

জেলার আয়মারসুলপুর ইউনিয়নের জয়দেবপুর গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের স্ত্রী মনিরা খাতুন। ২ ছেলে ১ মেয়ের সংসারে অভাব যখন নিত্যসঙ্গী তখনই জানতে পারেন জাকস ফাউন্ডেশন প্রাণিসম্পদ ইউনিটের ঋণ সহায়তার খবর। ২০১৮ সালের শুরুতেই সাপ্তাহিক ৪০ টাকা হারে সঞ্চয় জমা করার মধ্য দিয়ে প্রথম ৫ হাজার টাকা ঋণ গ্রহণ করেন। মনিরাকে হাঁস পালনের প্রশিক্ষণ, মাচা তৈরি, হাঁসের খাদ্য, ওষুধ ও টিকা প্রদানে বিনামূল্যে সহযোগিতা করা হয়। প্রথমে ৫০ টি ব্রয়লার হাঁসের বাচ্চা কিনে ৯০ দিন ব্যাপী লালন পালনের পর বিক্রি করেন ২২ হাজার টাকা। ঋণ পরিশোধ সহ অন্যান্য খরচ বাদেও লাভ থাকে প্রায় ১৫ হাজার টাকা। এরপর মনিরা খাতুনকে আর পেছনে তাকাতে হয়নি। সংসারে এসেছে আর্থিক স্বচ্ছলতা। বর্তমানে মনিরা খাতুনের খামারে ৬৫০ টি হাঁস রয়েছে। মাচা তৈরি করেছেন দুটি। একেকটি হাঁসের ওজন হয়েছে বর্তমানে দুই থেকে আড়াই কেজি। তিন থেকে সাড়ে তিন কেজি ওজনের পর হাঁস বিক্রি করা হবে বলে জানালেন মনিরা খাতুন। ওজন অনুযায়ী প্রতিটি হাঁস ৫০০-৭০০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হয়ে থাকে। দেখতে যেমন সুন্দর তেমনি খেতেও দেশী হঁসের মতো সু-স্বাদু। আয়বর্ধন মূলক কাজে সম্পৃক্ত হওয়ার পর সংসারের অভাব দূর করে ছেলে-মেয়েরা এখন লেখাপড়া করছে। সফলতা দেখে আশপাশের নারীরাও এখন হাঁস পালনে আগ্রহ প্রকাশ করছেন এবং এগিয়ে আসছেন। হাঁস পালনে সার্বক্ষণিক সহযোগিতা করেন জাকস ফাউন্ডেশনের প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা: মো: জহুর আলী। হাঁস-মুরগী পালনে সদস্যদের যে কোন সমস্যার কথা শুনলে ছুটে যান তিনি।

বিভিন্ন এলাকা থেকে অভাবী নারীরা আসছেন মনিরা খাতুনের স্বাবলম্বী হওয়ার গল্প শুনতে। সমাজের হতদরিদ্র পরিবার গুলোকে আয় বর্ধনমূলক কাজের সঙ্গে সম্পৃক্ত করতে উদ্যোগ নিয়েছে স্থানিয় বে-সরকারি উন্নয়ন সংস্থা ’জাকস ফাউন্ডেশন’। এ কার্যক্রম বাস্তবায়নে সহযোগিতা করছে পল্লীকর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ)। ’ঘরে ঘরে বেইজিং হাঁস পালন.. অল্প সময়ে অধিক উন্নয়ন’ এ স্লোগানকে সামনে রেখে সদস্যদের মাঝে পরীক্ষামূলক ভাবে ব্রয়লার ( বেইজিং) জাতের হাঁস পালন শুরু করা হয়েছে। জাসক ফাউন্ডেশন’ হাঁস, মুরগী, গাভী, ছাগল পালন, কোয়েল পালন, গরু মোটাতাজাকরণ সহ প্রাণি সম্পদ ইউনিটের আওতায় আয়বর্ধনমূলক কার্যক্রম বাস্তবায়নে প্রায় ৩৪ কোটি টাকা ঋণ সহায়তা প্রদান করেছে বলে জানান, নির্বাহী পরিচালক নূরুল আমীন।

 

সূত্রঃ বাসস।

About Abu Naser

Check Also

রাসায়নিক দূষণ মুক্ত নিরাপদ ব্রয়লার উৎপাদনে খামারীদের সাথে ক্যাব’র তৃণমূল সভা অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ব্রয়লার মুরগি উৎপাদনে জীব ধারনামুলক নিরাপত্তা, কাঠামোগত নিরাপত্তা ও প্রায়োগিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *