Monday , January 21 2019
সর্বশেষ
Home / প্রথম পাতা / বাগদা চিংড়ি চাষে সাফল্য সাতক্ষীরার মোঃ শহিদুল ইসলামের

বাগদা চিংড়ি চাষে সাফল্য সাতক্ষীরার মোঃ শহিদুল ইসলামের

নিজস্ব প্রতিবেদক :   সাতক্ষীরা জেলার কালিগঞ্জ উপজেলার তারালি গ্রামের বাসিন্দা মোঃ শহিদুল ইসলাম। তিনি ১৫ বছর ধরে ঘের প্রস্তুত করে চিংড়ি চাষ করছেন। বর্তমানে লিজ নেয়া তাদের ২টি ঘের আছে, যা প্রায় ১৫ বিঘা জুড়ে বিস্তৃত। 

মোঃ শহিদুল ইসলাম প্রতিবেদককে জানান, প্রায় ২০ বছর আগে থেকে তাদের এলাকায় ব্যাপক বাগদা চিংড়ি আবাদ শুরু হয়। তারই ধারাবাহিকতায় তিনি হয়ে উঠেন মৎস্য খামারি। বাগদা চিংড়ি চাষ ছাড়াও বর্ষা মৌসুমে রুই, কাতলা, পুঁটি ইত্যাদিসহ শীত মৌসুমে কাঁকড়া চাষ করা হয়। যা থেকে লাভ আসে বছর প্রতি ৬০-৭০ হাজার টাকা। এছাড়া খোদ বাগদা চিংড়ি চাষে প্রতি বছর প্রায় ১-২ লক্ষ টাকা লাভ থাকে।

সাফল্যের পাশাপাশি মোঃ শহিদুল ইসলাম বুকে বয়েছেন ব্যর্থতার গ্লানি। জানা যায়, বাজারদরের অবনতি, চিংড়ির হোয়াইট স্পট ভাইরাসের আক্রমণসহ হ্যাচারি থেকে ভালো মানের রেণু না পাওয়ার প্রেক্ষিতে খামারি জীবনে তার করতে হয়েছে অনেক সংগ্রাম। দেশের দক্ষিণাঞ্চলে অতীতের মত বৃষ্টিপাত হচ্ছে না, ফলে বেড়ে যাচ্ছে লবণাক্ততা। এতে ঘেরে পূর্বে ধান চাষ করা গেলেও এখন সেটা অনেকটাই বিলুপ্ত হয়ে গেছে। ফলে অতিরিক্ত আয়ের উৎসও বন্ধ হয়ে গেছে মোঃ শহিদুল ইসলামের মতো অসংখ্য মৎস্য খামারির।

এছাড়া কৃষি ঋণের সুবিধা না থাকা সহ ক্ষতিকারক ভাইরাস সরকার কর্তৃক নিয়ন্ত্রণ না করা গেলে চিংড়ির সম্ভাবনাময় ভবিষ্যত থমকে পড়বে বলে মোঃ শহিদুল ইসলাম মনে করেন।

About Nur E Kutubul Alam

Agri Journalist | Future Farmer | Student

Check Also

বাবুগঞ্জে সরিষার বাম্পার ফলন, লক্ষমাত্রা ছাড়িয়ে ফসলের মাঠজুড়ে এখন হলুদ হাসি

আব্দুল্লাহ মামুন, বাবুগঞ্জ থেকেঃ চলতি রবি মৌসুমে বাবুগঞ্জে ব্যাপক পরিমাণ সরিষার আবাদ হয়েছে। সরিষা চাষ প্রচুর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *