Thursday , December 13 2018
সর্বশেষ
Home / পোলট্রি / অনুষ্ঠিত হলো পোল্ট্রি ও লাইভস্টক পুণর্মিলনী-২০১৮; পোল্ট্রি শিল্পকে এগিয়ে নিতে একতাবদ্ধ থাকার প্রত্যয়

অনুষ্ঠিত হলো পোল্ট্রি ও লাইভস্টক পুণর্মিলনী-২০১৮; পোল্ট্রি শিল্পকে এগিয়ে নিতে একতাবদ্ধ থাকার প্রত্যয়

দেশের পোল্ট্রি ও লাইভস্টক জগতের শীর্ষস্থানীয় উদ্যোক্তা ও পোল্ট্রি শিল্প সংশ্লিষ্ট সংগঠনগুলোর নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হলো ‘পোল্ট্রি ও লাইভস্টক পুণর্মিলনী-২০১৮’। প্যারাগন গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক
জনাব মসিউর রহমান এবং তাঁর সহধর্মিনী মিসেস ইয়াসমিন রহমানের আন্তরিক আতিথেয়তায় মুগ্ধ হলেন আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার কথা থাকলেও নির্ধারিত সময়ের বেশ আগে থেকেই অতিথিরা আসতে শুরু করেন। কেউ ফুলের তোড়া হাতে আবার কেউবা বিশাল আকারের কেক নিয়েও উপস্থিত হন। এ যেন এক আনন্দ মিলন মেলা!
 
বাংলাদেশ পোল্ট্রি ইন্ডাষ্ট্রিজ সেন্ট্রাল কাউন্সিলের (বিপিআইসিসি) সভাপতি জনাব মসিউর রহমানের গুলশানস্থ বাসভবনের ছাদে বসেই শুরু হয় আড্ডা। শতাধিক আমন্ত্রিত অতিথি আর বাহারি পদের খাবারের সমাগমে ক্রমেই জমে উঠতে থাকে পোল্ট্রি
ও লাইভস্টক পুণর্মিলনী। শুধু খাওয়া কিংবা আড্ডাই নয়, সেই সাথে চলতে থাকে নানা ধরনের আলোচনা ও পর্যালোচনা। দেশীয় পোল্ট্রি শিল্পের হালহকিকত, বিদ্যমান সমস্যা, আগামীদিনের পোল্ট্রি শিল্প, নতুন নতুন বিনিয়োগ- কোন কিছুই যেন বাদ যায়নি। কেউ কেউ এরই ফাঁকে সেরে ফেলেছেন ব্যবসায়িক আলোচনাও।
 
 
রাত ৯টার দিকে আড্ডায় ছেদ পড়ে। সকলেই সমবেত হন ৫ তলার পার্টি ফ্লোরে। সেখানে শুরু হয় ভিন্নধর্মী একটি আয়োজন। শুরুতেই জনাব মসিউর রহমান- ১০ম আন্তর্জাতিক পোল্ট্রি শো ও সেমিনারের প্লাটিনাম স্পন্সর- নাহার এগ্রো কমপ্লেক্স লিঃ -এর
ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব মো. রকিবুর রহমানের (টুটুল) এবং এলাংকো বাংলাদেশ এর প্রতিনিধি জনাব ডা. এ.কে.এম হুমায়ন আরেফিনের হাতে শুভেচ্ছার নিদর্শনস্বরূপ নিজস্ব বাগানে উৎপাদিত একটি ক্যকটাস গাছের চারা তুলে দেন। এরপর ২০১৯ সালের মার্চে অনুষ্ঠিতব্য ১১তম আন্তর্জাতিক পোল্ট্রি শো ও সেমিনারের প্লাটিনাম স্পন্সর- এসিআই লিমিটেড -এর এগ্রি বিজনেস বিভাগের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও ড. এফ.এইচ আনসারি, নারিশ পোল্ট্রি এন্ড হ্যাচারি’র পরিচালক জনাব শামসুল আরেফিন খালেদ অঞ্জন, প্যারাগন গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব মসিউর রহমান, সিপি-বাংলাদেশ এর ভাইস প্রেসিডেন্ট মি. শান্তি অংপানইয়া, এবং আদিয়ান এগ্রো লিঃ এর প্রতিনিধির হাতে শুভেচ্ছা উপহার তুলে দেয়া হয়। পরবর্তীতে সম্ভাব্য গোল্ড স্পন্সর, সিলভার স্পন্সর এবং ব্রোঞ্জ স্পন্সরদের নাম ঘোষণা করেন ওয়াপসা-বাংলাদেশ শাখার সাধারন সম্পাদক জনাব মাহাবুব হাসান।
  
বিভিন্নমুখী আয়োজনের মাঝে পুণর্মিলনী অনুষ্ঠানে ছোট্ট একটি মতবিনিময় পর্বও স্থান করে নেয়। ব্রিডার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি জনাব মো. রকিবুর রহমান (টুটুল) বলেন, কিছু নেগেটিভ প্রোপাগান্ডা পোল্ট্রি শিল্পের বড় ধরনের ক্ষতি করে চলেছে। তাঁর মতে- এ ধরনের নেতিবাচক প্রচারণা বন্ধ না হলে ভোক্তাদের মধ্যকার আস্থার সংকট কাটবে না। পোল্ট্রি শিল্প সংশ্লিষ্ট সকলকে তিনি “পোল্ট্রি বাংলাদেশ” ফেসবুক পেজের সাথে যুক্ত হয়ে পোল্ট্রি’র ডিম ও মুরগির মাংসের পজেটিভ পোষ্টগুলো বেশি বেশি করে শেয়ার করার আহ্বান জানান।
 
জনাব মসিউর রহমান বলেন- একটা কঠিন সময় পার করছে বাংলাদেশের পোল্ট্রি শিল্প। বিগত প্রায় এক বছর ডিম খামারিরা লোকসান গুনেছেন। অনেকেই খামার বন্ধ করে দিয়েছেন। এর পরপরই কমে গেছে ব্রয়লার মুরগির দাম। বাচ্চা বিক্রি করে উৎপাদন খরচের টাকাটাও ঘরে তোলা যাচ্ছেনা। ফিড মিলগুলোর বিশাল অংকের টাকা আটকে গেছে। জনাব মসিউর বলেন- পোল্ট্রি শিল্প, এদেশের মানুষের জন্য প্রাণিজ আমিষের যোগান দিয়ে চলেছে কিন্তু তাঁদের মূল্যায়ন করার পরিবর্তে কর ও শুল্কের বোঝা চাপিয়ে দেয়া হচ্ছে। নীতি-নির্ধারকদের কাছে হয়ত এমন মনে হচ্ছে যে- পোল্ট্রি সেক্টরের কোন সমস্যা নেই, তাই তাদের নিয়ে ভাবনারও কোন দরকার নেই। তিনি বলেন, পোল্ট্রি শিল্পকে টিকিয়ে রাখতে হলে ব্যক্তিগত পছন্দ-অপছন্দ, ইচ্ছা-অনিচ্ছার উর্ধ্বে উঠে একসাথে কাজ করতে হবে। পোল্ট্রি পণ্যের প্রমোশন, মার্কেট জরিপ ও গবেষণা কাজে, এডভোকেসি ও লবিং -এর জন্য প্রফেশনালস ও বিশেষজ্ঞদের কাজে লাগাতে হবে; এজন্য প্রচুর অর্থেরও প্রয়োজন।
 
 
ওয়ার্ল্ড’স পোল্ট্রি সায়েন্স অ্যাসোসিয়েশন-বাংলাদেশ শাখার সভাপতি জনাব শামসুল আরেফিন খালেদ অঞ্জন বলেন, আমাদের মনে রাখতে হবে বাজারে ডিম ও মুরগির মাংসের যে স্বাভাবিক চাহিদা ছিল তা মোটামুটিভাবে পূরণ হয়েছে। যে শূণ্যতা ছিল সেটিও পূরণ হয়েছে। আগের মত ২০ শতাংশ হারে প্রবৃদ্ধি এখন আর সম্ভব নয়। আগামীতে প্রবৃদ্ধির হার আরও কমবে। তাই ইনক্লুসিভ গ্রোথের জন্য পরিকল্পনা করতে হবে। ডিমান্ড ও সাপ্লাই সাইডকে অনেক বেশি শক্তিশালী করতে হবে। ভোক্তাদের মাঝে আস্থা তৈরি করতে হবে। সামগ্রিক বিচারে পোল্ট্রি শিল্পের দক্ষতা আরও বাড়াতে হবে। সকলে মিলে একই সুরে কথা বলতে হবে, কাজ করতে হবে, বিপিআইসিসি’র পতাকাতলে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। জনাব অঞ্জন বলেন- পোল্ট্রি শিল্পের দ্বিতীয় ধাপে পৌঁছাতে হলে আগামী ২-৩ বছর বিভিন্ন ধরনের পুণর্বিন্যাসের প্রয়োজন রয়েছে। এজন্য একদিকে যেমন অর্থের প্রয়োজন হবে অন্যদিকে প্রত্যেকের নেটওয়ার্কগুলোকে সর্বাত্মকভাবে কাজে লাগাতে হবে।
 
 
জনাব অঞ্জনের কথার সূত্র ধরে জনাব মসিউর বলেন- আমরা প্রত্যেকেই যদি প্রতিবছর পোল্ট্রি শিল্পের উন্নয়নের জন্য মাত্র ২০ হাজার টাকা করে বিপিআইসিসি’র ফান্ডে জমা দিই, তাহলে কারো উপরই বেশি চাপ পড়বেনা। জনাব মসিউরের এ প্রস্তাবে উপস্থিত সকলেই সমর্থন দেন। সিদ্ধান্ত হয়- আগামী বছর থেকে বিপিআইসিসি’ভুক্ত প্রতিটি অ্যাসোসিয়েশনের প্রত্যেক সদস্য পোল্ট্রি শিল্পের উন্নয়নের স্বার্থে উল্লিখিত পরিমান অর্থ স্ব-স্ব অ্যাসোসিয়েশনের মাধ্যমে বিপিআইসিসি’র ফান্ডে জমা প্রদান
করবেন।
এনিমেল হেলথ কোম্পানীজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (আহকাব) সভাপতি জনাব এ.কে.এম আলমগীর বলেন- অতীতের মত আগামীতেও তিনি পোল্ট্রি খাতের জন্য কাজ করে যাবেন।
 
পোল্ট্রি ও লাইভস্টক পুণর্মিলনী-২০১৮ অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন- প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক জনাব হিরেশ রঞ্জন ভৌমিক, আহকাব -এর নব-নির্বাচিত সভাপতি কৃষিবিদ জনাব ডা. এম. নজরুল ইসলাম ও মহাসচিব ডা. মো. কামরুজ্জামান; ব্রিডার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক ও বে এগ্রো’র পরিচালক জনাব আসিফুর রহমান, কোয়ালিটি ফিডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব এহতেশাম বি. শাহজাহান, প্রোটিন হাউস এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব মো. কায়সার আহমেদ, এম.এম আগা লিঃ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক আজগর দাদা, রেনাটা লিঃ এর এনিমেল হেলথ ডিভিশনের প্রধান জনাব মো. সিরাজুল হক এবং সিপি-বাংলাদেশ এর ভাইস প্রেসিডেন্ট মি. পি. কিচারোয়েন। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন আফতাব বহুমুখী ফার্মস লিঃ, অলটেক বায়োটেকনোলজি প্রাইভেট লিঃ, আরিফস (বাংলাদেশ) লিঃ, এক্সন বাংলাদেশ, জিমস ইন্টারন্যাশনাল, নোভিভো হেলথ কেয়ার লিঃ, ডায়মন্ড চিকস এন্ড ফিডস, ইউ.এস সয়াবিন এক্সপোর্ট কাউন্সিল, এসিআই গোদরেজ প্রাইভেট লিঃ, আগাথা ফিডস লিঃ, টয়ো ফিডস লিঃ, এস.এম.এস ফিডস লিঃ, বিশ্বাস পোল্ট্রি এন্ড হ্যাচারি, সুগুনা ফুড এন্ড ফিডস বাংলাদেশ প্রা. লিঃ, এলিয়া ফিডস লিঃ, মন্ডল ফিডস লিঃ, এভান্স এশিয়া লিঃ, শ্রেষ্ঠ ফিড লিঃ, ইয়ন গ্রুপ, এলাংকো বাংলাদেশ লিঃ, এভোনিক ইন্ডাষ্ট্রিজ এ.জি, পোল্ট্রি কনসালট্যান্ট এন্ড ডেভেলপমেন্ট সার্ভিসেস, কেমিন (বাংলাদেশ) লিঃ, রাশিদ কৃষি খামার লিঃ, আমান ফিড লিঃ, প্রোভিটা হ্যাচারি লিঃ, স্পেকট্রা হেক্স ফিডস লিঃ, কাজী ফার্মস লিঃ, এ.আই.টি, এজি এগ্রো ইন্ডাষ্ট্রিজ লিঃ, নিউহোপ ফার্ম বাংলাদেশ লিঃ, পঁচা পোল্ট্রি এন্ড ফিডস লিঃ, বেঙ্গল ওভারসীজ লিঃ, বেঙ্গল ফিডস লিঃ, বায়ো ল্যাব, এডভান্স বায়ো-প্রোডাক্টস লিঃ, ফিসটেক (বাংলাদেশ) লিঃ, প্লানেট ফার্মা, চৌধুরি এন্টারপ্রাইজ, হেলাল এন্টারপ্রাইজ, ইসলাম এন্টারপ্রাইজ, আমার ট্রেডিং, এডভান্স এনিমেল সায়েন্স কো. লিঃ, সিডার বাংলাদেশ লিঃ, নিউট্রিভেট, বি.এ.এস.এফ, এসকায়েফ বাংলাদেশ লিঃ, স্কয়ার ফার্মা, বিগ ডাচম্যান, চিকস্ এন্ড ফিডস লিঃ, মুয়াং হোল্ডিং কো. লিঃ, জি.এস.আই এশিয়া গ্রুপ কাম্বারল্যান্ড, সেঞ্চুরি এগ্রো, ন্যাচারকেয়ার, আনোয়ার সিমেন্ট শীট, ইব্রাতাস ট্রেডিং, গ্রেইন কনসোর্টিয়াম, খান এগ্রো ফিড প্রোডাক্টস, এম.এস ট্রেডিং, এ.আই হাবিব এন্টারপ্রাইজ, বেঙ্গল প্রোটিন এন্ড ফ্যাট সাপ্লায়ার, জননী ট্রেডিং, মদিনা ট্রেডিং, তামিম এগ্রো, এ.বি ভিস্তা, পিপলস পোল্ট্রি এন্ড হ্যাচারি, এমপেল এনিম্যাল কেয়ার, এফ.টি.ডি.সি, ডি.এস.এম, হুভে ফার্মা, নর্থ পোল্ট্রি প্রা. লিঃ, ইউনিভেট লিঃ, এভোন পোল্ট্রি, বায়োকেয়ার এগ্রো লিঃ, প্রোভেট হাউস লিঃ, পিএপি লিংক -এর প্রতিনিধিবৃন্দ, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর ও বি.এল.আর.আই এর কর্মকর্তাবৃন্দ এবং বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ও শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকবৃন্দ।

About Editor

Check Also

কারিগরি কর্মকর্তা পদে প্রয়াস মানবিক উন্নয়ন সোসাইটির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ

এগ্রিভিউ২৪ জব ডেস্ক : পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশন (PKSF) এর সহযোগী সংগঠন প্রয়াস মানবিক উন্নয়ন সোসাইটির নিয়োগ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *