Wednesday , November 21 2018
সর্বশেষ
Home / প্রথম পাতা / আইন পেশা ছেড়ে সিলেটের এক তরুণের মৎস্য খামারি হবার গল্প

আইন পেশা ছেড়ে সিলেটের এক তরুণের মৎস্য খামারি হবার গল্প

নিজস্ব প্রতিবেদক : হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ থানার আউশকান্দিতে অবস্থিত প্রায় ২৩০ শতক জায়গা জুড়ে রয়েছে ৫টি বড় পুকুর। এখানে চাষ করা হয় রুই, কাতল এবং পাঙ্গাস। বিল আকারের এই পুকুরে যেদিকে চোখ যায়, সেদিকে হৃদয় জুড়িয়ে যায়। এই মৎস্য খামারটি ফাহিম চৌধুরির।

সিলেটের মেট্রোপলিটন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইন বিষয়ে স্নাতক শেষে কিছুকাল আইন পেশায় মন দেবার চেষ্টা করেন ফাহিম। কিন্তু তার মন টানেনি। শৈশব থেকে দেখে এসেছেন পারিবারিক মৎস্য খামার। নিজের প্রচেষ্টায় তখন শুরু হলো এক নতুন গল্পের, যাত্রা শুরু করে “সারজা এগ্রো ফার্ম।”

শুরুটা সহজ ছিলো না। আইন ব্যবসা থেকে মৎস্য সেক্টরে আসা নিঃসন্দেহে তার জীবনের একটি আত্নঘাতী সিদ্ধান্ত ছিলো বটে! পরিবারে মৎস্য সেক্টরে সম্পৃক্তদের কাছ থেকে পেয়েছেন সমর্থন। সাথে মৎস্য কর্মকর্তা বন্ধুদের কাছ থেকে পেয়েছেন নানান পরামর্শ। ২০১২ সাল থেকে শুরু হয় তার খামারী জীবন।

মাছগুলোর গড় ওজন ৫-৭ মাসে ১-১.৫ কেজি পর্যন্ত হয়। খোদ পাঙ্গাস মাছ থেকেই বছরে ২ কিস্তিতে পুকুর প্রতি ৭০-৮০,০০০/-  লাভ থাকে। পুকুরগুলোর চারপাশে রয়েছে রেড লিলি জাতের পেঁপে গাছ, সিলেট অঞ্চলের বিখ্যাত সাতকরা জারালেবু জাতের লেবু গাছ সহ চায়না লেবু গাছ। পেঁপে গাছগুলো ৩-৩.৫ ফুট লম্বা হয়, ওজনে ২ কেজি পর্যন্ত ফলন দিচ্ছে। এছাড়া কলা গাছসহ বিভিন্ন সবজির সমরোহ বিদ্যমান।

 

মাছগুলোকে নিজস্ব উদ্যোগে খাবার প্রস্তুত করে খাওয়ান ফাহিম। খৈল, ধানের তুষ, ভুট্টার গুঁড়া ইত্যাদি থেকে প্রস্তুত হয় মাছের খাবার। তাই উৎপাদন খরচ অনেকটাই সহনীয় পর্যায়ে আছে তার।

ফাহিম চৌধুরি প্রতিবেদককে জানান, মৎস্য সেক্টর যতটা সহজ ভাবা হয় আসলে ঠিক ততটাই কঠিন। পুকুরে বিষ প্রয়োগের ঝুঁকি এবং পোনা অবমুক্তকরণ বেশ জটিল, এমন অভিমত তিনি ব্যক্ত করেন। এই সেক্টরকে আরো শক্তিশালী করতে ফিড ও পোনার দাম সহনীয়করণ এবং কৃষি ঋণে জটিলতা দূরীকরণের বিকল্প তিনি দেখছেন না।

About Nur E Kutubul Alam

Agri Journalist | Future Farmer | Student

Check Also

ডেইরী শিল্পে সফলতার অপর নাম “কৃষিবিদ ডেইরী ফার্ম”

অনিক অাহমেদ, সাভার, ঢাকা: দেশের ক্রমবর্ধমান মানুষের প্রাণিজ অামিষের চাহিদা পূরণে ব্যাপক ভূমিকা পালন করে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *