Tuesday , November 20 2018
সর্বশেষ
Home / কৃষি বিভাগ / ‘জৈবিকভাবে ইঁদুর দমনের উপর জোর দিতে হবে’

‘জৈবিকভাবে ইঁদুর দমনের উপর জোর দিতে হবে’

অনিক অাহমেদ: যশোর অাঞ্চলিক কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক কৃষিবিদ চন্ডী দাস কুন্ডু বলেছেন, ‘ইঁদুর হলো একটি ইতর, দুষ্টু এবং রাক্ষুসে প্রাণী; যার ভাল কোনো গুণ নেই। এজন্য ইঁদুর দমনে যা করা দরকার তাই করতে হবে। তবে বিদ্যুতায়িত করে ইঁদুর না ধরে বিকল্প পদ্ধতি হিসেবে জৈবিক দমনের উপরে জোর দিতে হবে।’ রবিবার (১৪ অক্টোবর) যশোর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের প্রশিক্ষণে হলে “জাতীয় ইঁদুর নিধন অভিযান-২০১৮ ও ২০১৭’এর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান” এর উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। যশোর অাঞ্চলিক কৃষি সম্পসারণ অধিদপ্তর এ অনুষ্ঠানের অায়োজন করে।

প্রধান অতিথি অারো জানান, ‘বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএআরআই) থেকে পেঁচা সংরক্ষনের উপরে একটা প্রকল্প নেয়া হয়েছে। এই প্রকল্প চালু হলে ইঁদুর দমন সহজতর হবে। রোপা আমনের মৌসুমে আমন ধানের শীষ বের হয়, যা ইঁদুরের খুব প্রিয় খাবার। তাই এই মৌসুমে জাতীয় ইঁদুর নিধন করা হয়। এ সময়ে খাবারও বেশি থাকে। তবে সারা বছরই ইঁদুর মারতে হবে।’

“ঘরের ইঁদুর, মাঠের ইঁদুর, ধ্বংস করে অন্ন; সবাই মিলে ইঁদুর মারি, ফসল রক্ষার জন্য” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে এ অভিযান শুরু হয়েছে চলতি মাসের ১১ তারিখ এবং চলবে আগামী ১০ নভেম্বর পর্যন্ত। কৃষিবিদ এমদাদ হোসেন সেখ, উপপরিচালক, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, যশোরের সভাপতিত্বে পরিচালিত অনুষ্ঠানে যশোর অঞ্চলের জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের কর্মকর্তা, পুরস্কারপ্রাপ্ত চাষী, প্রতিষ্ঠান প্রতিনিধি সহ প্রায় শ’খানেক ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে বক্তারা অারো বলেন, প্রতি বছর ইঁদুর দেশে ৫০০ কোটি টাকার ফসলের ক্ষতি সহ মোট প্রায় ২৫০০ কোটি টাকার ক্ষতি করে থাকে। একবার বাচ্চা ধারনের ৪৮ ঘন্টার মধ্যে আবার গর্ভধারণ করে। ইঁদুরের একটা লোম থেকে ডিপথেরিয়া ও ডায়রিয়ার মত রোগ হতে পারে। গোল মরিচ স্প্রে করলে ইঁদুর সেখানে আসে না।

সারা পৃথিবীতে প্রতি বছর ইঁদুর এতটাই ক্ষতি করে যা ছোট ছোট ৪০ টি দেশের মোট বাৎসরিক জাতীয় আয়ের সম পরিমান। ইঁদুন নিধনের গুরুত্ব জনগণকে অবহিত করতে তৎপরতা বাড়াতে হবে এবং এ ব্যাপারে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। ইদুর ভোজী সকল ( পেঁচা, বিড়াল, বন বিড়াল, শিয়াল, গুইসাপ) প্রাণী সংরক্ষণ করতে হবে। ইঁদুর নিধন শুধু আমন মৌসুমে নয়, সারা বছরই এটার প্রচারনা অব্যাহত রাখতে হবে। ইঁদুর মোট ৪০ টি প্রাণঘাতী রোগ ছড়ায়। বর্তমানে এটাই ভাইরাস ছড়াচ্ছে বলে ব্রাজিলে প্রাপ্ত তথ্যে জানা গেছে।

অনুষ্ঠানে বিগত ২০১৭ সালে ইঁদুর নিধনে কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের জন্য তিন জন উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা, ছয়জন কৃষক এবং দুটি প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কৃত করা হয়। অঞ্চল পর্যায়ে ইঁদুর নিধনে গতবারের ন্যায় এবারেও প্রথম হয়েছে যশোরের মনিরামপুর উপজেলা।

About Anik Ahmed

Check Also

জয়পুরহাটে চলছে আমন ধান কাটা-মাড়াই

ফলন ও দাম ভাল পাওয়ায় হাসিমুখে মহা ধুমধামে রোপা আমন ধান কাটা মাড়াই শুরু করেছেন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *