Wednesday , November 21 2018
সর্বশেষ
Home / ক্যাম্পাস / অবাক কান্ড করলেন গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার
সঙ্গীত পরিবেশন করছেন রেজিস্ট্রারসহ অন্যান্যরা। ছবি: রকিবুল ইসলাম

অবাক কান্ড করলেন গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার

অনিক অাহমেদ, গণ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি: রাজধানীর সাভারস্থ গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় চলছিল ব্যতিক্রমধর্মী সংগীত সন্ধ্যা। বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষকবৃন্দরা জনপ্রিয় গানসমূহ পরিবেশন করছিলেন। অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বের শেষ পর্যায়ে গোধূলীলগ্নে উপস্থাপিকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো: দেলোয়ার হোসেনকে সঙ্গীত অায়োজন নিয়ে কিছু বলার জন্য মঞ্চে ডাকেন।

মঞ্চে অধিষ্ঠিত হয়ে তিনি উপস্থিত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সাথে তাঁর সংগীত অভিজ্ঞতার গল্প ভাগ করে নেন। এরপরই করে বসেন এক অবাক কান্ড। হঠাৎ করেই তিনি ডেকে নেন দর্শকসারিতে উপস্থিত বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মীর মর্ত্তুজা অালী বাবু, আইন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মো. রফিকুল ইসলাম সহ কয়েকজন বিভাগীয় প্রধানকে।

এমন পরিস্থিতিতে উপস্থিত সকলের নিকট কৌতূহল জাগে, কি করতে চাচ্ছেন রেজিস্ট্রার। সকলের কল্পনার অবসান ঘটিয়ে সম্মিলিত কন্ঠে গান শুরু করে দেন রেজিস্ট্রারসহ মঞ্চে অধিষ্ঠিত সকল শিক্ষকগণ। এসময় দর্শক সারিতে তুমুল করতালির রেশ পড়ে যায়। সংগীত পরিবেশনার মধ্য দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের নিকট নতুন রূপে আবির্ভূত হলেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (১১ অক্টোবর) বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের ৪র্থ তলায় অায়োজিত সঙ্গীত সন্ধ্যায় এ কান্ড করেন রেজিস্ট্রার। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (ভারপ্রাপ্ত) ডা. লায়লা পারভীন বানু। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রেজিস্ট্রার মো. দেলোয়ার হোসেন, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মীর মর্ত্তুজা আলী বাবু, কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডীন অধ্যাপক মুনসুর মুসা, আইন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান রফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

বিকাল ভাষা ও যোগাযোগ বিভাগের শিক্ষিকা আয়েশা সিদ্দিকার উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে উপাচার্য ডা. লায়লা পারভীন বানু এবং পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মীর মর্ত্তুজা অালী বাবু কবিতা পরিবেশন করেন। এরপর  বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ সংগীত পরিবেশন করেন। পড়ন্ত বেলায় প্রিয় শিক্ষক-শিক্ষিকাদের কণ্ঠে ‘আমায় এতো রাতে কেন ডাক দিলি’, ‘যেটুকু সময় তুমি থাকো পাশে’ সহ বাংলাদেশের জনপ্রিয় কিছু গানের পরিবেশনা উপস্থিত শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন প্রাণের সঞ্চার করে।

মাগরিবের নামাজের বিরতির পর শুরু হয় অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্ব। ইংরেজি বিভাগের শিক্ষিকা সাকিন অাক্তারের উপস্থাপনায় এসময় বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা মনোমুগ্ধকর নাচ, গান পরিবেশন করেন। এসময় বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষিকাসহ দুই শতাধিক ছাত্র-ছাত্রী উপস্থিত ছিলেন।

About Anik Ahmed

Check Also

“সেনাধিরা রাইস রিসার্চ এ্যাওয়ার্ড ২০১৮” পেলেন ড. তমাল লতা আদিত্য

আন্তর্জাতিক ‘সেনাধিরা ধান গবেষণা পুরস্কার’ পেয়েছেন বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের ধান প্রজননবিদ ও পরিচালক (গবেষণা) …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *