Monday , November 19 2018
সর্বশেষ
Home / কৃষি গবেষনা / গমের আলগা ঝুল রোগের লক্ষণ ও প্রতিকার ব্যবস্থা

গমের আলগা ঝুল রোগের লক্ষণ ও প্রতিকার ব্যবস্থা

বাংলাদেশে খাদ্য ফসল হিসাবে গম দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে । খাদ্যমানের দিক থেকে গম চালের চেয়ে পুষ্টিকর। চালের তুলনায় গমে প্রোটিন, ভিটামিন ও খনিজ পদার্থের পরিমান বেশী। অপরদিকে গম চাষে পানির প্রয়োজন ধানের তুলনায় খুবই কম। যে জমিতে সেচের সুবিধা নেই অথচ মাটিতে যথেষ্ট পরিমানে রস থাকে সে জমিতে বিনা সেচেও সফলভাবে গম চাষ করা যায়। কিন্তু গমের রোগবালাই গম চাষের একটি অন্যতম প্রতিবন্ধক। এব ফলে গমের যথেষ্ট ক্ষতি সাধন হয়। এ পর্যন্ত গমের ১৫টি রোগ সনাক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে অধিকাংশই ছত্রাক জনিত। গমের রোগ নিয়ন্ত্রনে রাখতে পারলে গমের উৎপাদন অনেক বৃদ্ধি পাবে। নিন্মে গমের মারাত্মক একটি রোগ সম্পর্কে বর্নণা করা হল।

 

আলগা ঝুল রোগ (Loose smut)

রোগের কারণঃ উস্টিল্যাগো ট্রিট্রিসি (Ustilago tritici) নামক ছত্রাক দ্বারা এ রোগ হয়ে থাকে।

রোগের বিস্তারঃ

এ রোগটি বীজ বাহিত। সুস্থ জমিতে এটি বীজ ও বাতাসের মাধ্যমে ছড়ায়। ঠান্ডা  ও অপেক্ষাকৃত আর্দ্র অঞ্চলে লুজ স্মাট রোগ বেশী হয়।

রোগের লক্ষণঃ

  • গমের শীষ আসার সময় দেখা যায় যে, গমের শীষে ফুল ও বীজের পরিবর্তে সমস্ত শীষ কাল রঙের পাউডার দ্বারা ভর্তি থাকে যা দেখতে ঝুলের ন্যায় দেখায়।
  • এ সমস্ত পাউডার ছত্রাকের অসংখ্য কাল রঙের অণুজীব বা স্পোর।
  • প্রথম দিকে ছত্রাক স্পোর একটি পাতলা আবরণ দ্বারা আবৃত থাকে। পরে ঐ পাতলা আবরণ ফেটে স্পোরগুলো বের হয়ে যায়।
  • ফলে আক্রান্ত গাছের ছড়াটি দানা শুন্য অবস্থায় থাকে।
  • স্পোরগুলো পরবতীতে সুস্থ গাছকে আক্রমন করে।

 

রোগের প্রতিকারঃ

  • সুস্থ জমি হতে বীজ সংগ্রহ করতে হবে।
  • বীজ ৪ ঘন্টা ঠান্ডা পানিতে ভিজিয়ে রেখে পরে ৫০ ডিগ্রী সেন্টিগ্রেড তাপমাত্রার পানিতে ১০ মিনিট রেখে শোধন করতে হবে।
  • কার্বেন্ডাজিম (অটোস্টিন) অথবা কার্বোক্সিন + থিরাম (প্রোভ্যাক্স ২০০ ডব্লিউপি) প্রতি কেজি বীজে ২.৫ গ্রাম হারে মিশিয়ে বীজ শোধন করে বপন করতে হবে।
  • জমিতে রোগ দেখা দেওয়ার সাথে সাথে আক্রান্ত শীষ আস্তে পলিথিন অথবা চটের ব্যাগে ভরে জমি থেকে তুলে পুড়িয়ে ফেলতে হবে।
  • রোগ দেখা দেয়ার সাথে সাথে কার্বেন্ডাজিম (অটোস্টিন) প্রতি লিটার পানিতে ১.৫ গ্রাম হারে মিশিয়ে ১০ দিন পর পর ২-৩ বার স্প্রে করতে হবে।
বিজ্ঞানী ড. কে, এম, খালেকুজ্জামান
উর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা (উদ্ভিদ রোগতত্ত্ব)
মসলা গবেষণা কেন্দ্র, বিএআরআই
শিবগঞ্জ, বগুড়া।
মোবাইলঃ ০১৯১১-৭৬২৯৭৮
ইমেইলঃ zaman.path@gmail.com

About Editor

Check Also

জয়পুরহাটে চলছে আমন ধান কাটা-মাড়াই

ফলন ও দাম ভাল পাওয়ায় হাসিমুখে মহা ধুমধামে রোপা আমন ধান কাটা মাড়াই শুরু করেছেন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *