Monday , July 23 2018
সর্বশেষ
Home / কৃষি বিভাগ / ফল ও সবজিতে ফরমালিন নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই

ফল ও সবজিতে ফরমালিন নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই

প্রিন্স বিশ্বাস, শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিঃ ফল ও সবজিতে ফরমালিনের উপস্থিতি নিয়ে ভোক্তাদের আতঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই। প্রতিটি ফসলেই প্রাকৃতিক ভাবে কিছু ফরমালডিহাইড তৈরী হয় যা ঐ ফসলের সংরক্ষণের জন্য সহায়ক হয়। এ মাত্রায় ফরমালিন শরীরের জন্য ক্ষতিকারক নয়। ফরমালডিহাইডের একটি নির্দিষ্ট মাত্রার দ্রবণকে ফরমালিন বলা হয়। কেবল ফরমালিনে কোন সবজি ও ফল দীর্ঘ সময়ের জন্য পুরোপুরি ডুবিয়ে রাখলে তখনই শরীরের জন্য ক্ষতিকারক হতে পারে।

আজ (বুধবার) রাজধানীর মানিক মিয়া এভিনিউয়ের সেচ ভবনে বাংলাদেশ ফলিত পুষ্টি গবেষণা ও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট (বারটান) এর সম্মেলন কক্ষে ‘খাদ্য নিরাপত্তা বিষয়ক সেমিনার’ এ বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের সদস্য অধ্যাপক ড. মো. ইকবাল রউফ মামুন এ কথা বলেন। বারটান-এর পরিচালক (যুগ্মসচিব) কাজী আবুল কালামের সভাপত্বিতে অনুষ্ঠিত এ সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. মো. আব্দুর রউফ। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উচ্চতর গবেষণা কেন্দ্রের প্রধান বিজ্ঞানী ড. লতিফুল বারী। সেমিনারে সরকারি, বেসরকারি ও বিভিন্ন সংস্থার বত্রিশ জন নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক বিশেষজ্ঞ অংশ নেন। 

ড. লতিফুল বারী বলেন, ফসল সংগ্রহোত্তর প্রক্রিয়াজাতকরণ স্বাস্থ্য সম্মত না হওয়ায় তা গ্রহনের ফলে আমাদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি বাড়ছে। ৬০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার উপর রান্না করতে গিয়ে খাদ্যের পুষ্টি গুণাগুণ কমে আসে। তিনি আরো বলেন, খাবার পূর্বে ভালভাবে হাত পরিষ্কার করলে অন্তত ৫০ শতাংশ রোগ জীবাণু থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব।

জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি বিষয়ক সংস্থার (ফাউ) ঊর্ধ্বতন পুষ্টিবিদ ড. ললিতা ভট্টাচার্য বলেন, মানুষের মাঝে খাদ্য নিরাপত্তা বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে, কিন্তু আতঙ্ক ছড়ানো যাবে না। সবার ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টার মাধ্যমে পুষ্টি সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টি হওয়া সম্ভব।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. মো. আব্দুর রউফ বলেন, দেশে খাদ্য নিরাপত্তা বিষয়ক অনুমোদিত পরীক্ষাগার তৈরীর জন্য প্রকল্প প্রস্তাব পেশ করলে সরকার সাড়া দিবে। খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টি বিষয়ক যে কোন তথ্য প্রয়োজনে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের মাধ্যমে তৃণমূল পর্যায়ে ছড়িয়ে দেওয়ার নির্দেশনা দেন।

সভাপতির বক্তব্যে কাজী আবুল কালাম বারটানের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস ও কার্যাবলী তুলে ধরেন। তিনি বলেন, বারটানে গবেষণা ও প্রশিক্ষণের পাশাপাশি পুষ্টি বিষয়ক ডিপ্লোমা ও স্বল্প মেয়াদী সার্টিফিকেট কোর্স অল্প সময়ের মধ্যে চালু করার কার্যক্রম চলছে। এ ছাড়া ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত পাঠ্যপুস্তকে পুষ্টি বিষয়ক তথ্যের সমাবেশ কিভাবে ঘটানো যায় সে ব্যাপারে আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। সেমিনারটি সঞ্চালনা করেন বারটান-এর ঊর্ধ্বতন প্রশিক্ষক ড. মোহাম্মদ রাজু আহমেদ।

About Editor

Check Also

শেকৃবিতে বাংলাদেশের অর্থনীতিতে এগ্রিবিজনেসের গুরুত্ব বিষয়ক সেমিনার এবং এগ্রিবিজনেস সোসাইটির শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠিত

আবদুর রহমান রাফি: রাজধানীর শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শেকৃবি) বাংলাদেশের অর্থনীতিতে এগ্রিবিজনেসের গুরুত্ব এবং সম্ভাবনা বিষয়ক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *