Tuesday , November 13 2018
সর্বশেষ
Home / ক্যাম্পাস / সুরেলা নন্দিতা…

সুরেলা নন্দিতা…

অর্ঘ্য চন্দ, সিকৃবি প্রতিনিধিঃ অলরাউন্ডার শব্দটি শুনলেই মনের মাঝে উঁকি দেয় সাকিব আল হাসানের নাম, হউক সেটা ক্রিকেট, ফুটবল কিংবা অন্য কোন ক্ষেত্রে । আমাদের দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে রয়েছে সাকিব আল হাসান (পড়ুন অলরাউন্ডার) যারা পড়ালেখার পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন কর্মকান্ডে সংশ্লিষ্ট থাকেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের গন্ডি অতিক্রম করে নিজের বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিত্ব করেন দেশের বিভিন্ন প্রান্তে, অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে প্রতিযোগিতা করে নিজের বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম বৃদ্ধি করেন ।

আজ এমনই এক অলরাউন্ডারের সাথে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছি যিনি কিছুদিন আগে হয়ে যাওয়া আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় নজরুল গীতিতে হয়েছেন দ্বিতীয়, ভক্তি সংগীতে তৃতীয়; সাফল্যের শেষ নেই তার ঝুলিতে। বলছিলাম সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রিয় মুখ নন্দিতার কথা, যার পুরো নাম নন্দিতা দাশ দিশা। বর্তমানে কৃষি অনুষদের লেভেল ৪ সেমিস্টার ১ এ অধ্যয়নরত। ছোটবেলা থেকেই গানের মাধ্যমে অর্জন করেছেন একের পর এক পুরষ্কার। ২০০৪ সালের নতুন কুঁড়ি অনুষ্ঠানে নজরুল সংগীতে হয়েছিলেন প্রথম। এছাড়াও জাতীয় শিশু পুরষ্কার প্রতিযোগিতা, জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ মৌসুমি প্রতিযোগিতায় রবীন্দ্রসংগীত, লোকগীতিতে সেরা হয়েছেন। ২০১৫ সালে অনুষ্ঠিত মিস্টার এন্ড মিস সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে গান বিভাগে সেরা হয়েছিলেন নন্দিতা। কথা প্রসংগে জানালেন গান নিয়ে তার স্বপ্ন ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথা…

এগ্রিভিউ২৪.কমঃ গানের জগতে আসার শুরুর গল্পটা?

নন্দিতাঃ গান আমি একদম ছোটবেলা থেকেই গাই। সংগীত পরিবারে জন্ম হওয়ায় ছোটবেলায়ই সংগীতে হাতখড়ি।

এগ্রিভিউ২৪.কমঃ কি ধরনের গান গাইতে সবচাইতে বেশি ভাল লাগে?

নন্দিতাঃ নজরুল, রবীন্দ্র, লোক সবই গাইতে ভালো লাগে, তবে ক্ল্যাসিকাল আর সেমি ক্লাসিক্যাল বেশি ভাল লাগে।

এগ্রিভিউ২৪.কমঃ গান নিয়ে ভবিষ্যৎ ভাবনা?

নন্দিতাঃ গান নিয়ে অনেকদূর যাওয়ার চিন্তা আমার। শুদ্ধ সংগীতের প্রসার করতে চাই আমার দেশে। নজরুল সংগীত আর ক্লাসিক্যালের দিকে ঝোঁক বেশি থাকায় এ দুটো নিয়ে কাজ করতে চাই। আমাদের জেনারেশনের কাছে নজরুল আর উচ্চাঙ্গসংগীত কে অন্যভাবে তুলে ধরতে চাই, যাতে তারাও এই ধারার সংগীতের ব্যাপারে আগ্রহী হয়। আর অবশ্যই একজন প্রতিষ্ঠিত শিল্পী হওয়ার ইচ্ছা আছে।

এগ্রিভিউ২৪.কমঃ গানের অনুষ্ঠানে মজার কোন স্মৃতি মনে পড়ে কি ?

নন্দিতাঃ দেশবরেণ্য শ্রদ্ধেয় মরহুম ওয়াহিদুল হক হবিগঞ্জে এসেছিলেন জাতীয় রবীন্দ্র সংগীত কর্মশালায়। তখন আমার বছর ৫বছর। আমার গান কথাবার্তা শুনে উনি বলেছিলেন “হবিগঞ্জ থেকে একটা গ্রেনেড এসেছে” কথাটা শুনলে এখনো ভালো লাগে।

এগ্রিভিউ২৪.কমঃ গান শেখার পেছনে সবচাইতে অবদান বেশি কার?

নন্দিতাঃ গান আমি শিখেছি আমার বাবার কাছে।তাই উনার অবদান মুখ্য। এছাড়াও আমার মা আর বোনেরও অনেক অবদান আছে।

এগ্রিভিউ২৪.কমঃ আপনার প্রিয় শিল্পী কে?

নন্দিতাঃ দেশে- সাবিনা ইয়াসমিন, রুনা লায়লা, প্রিয়াংকা গোপ,বিজন চন্দ্র মিস্ত্রী, মিফতাহ জামান প্রমুখ। বাইরে- লতা মঙ্গেশকার,অজয় চক্রবর্তী, কৌশিকী চক্রবর্তী, শুভমিতা, দুর্নিবার প্রমুখ।

এগ্রিভিউ২৪.কমঃ ধন্যবাদ আপনাকে।

নন্দিতাঃ আপনাকেও অসংখ্য ধন্যবাদ ।

About Editor

Check Also

সিকৃবিতে সমুদ্রবিজ্ঞান বিষয়ক পোস্টার প্রদর্শনি অনুষ্ঠিত

সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদে আজ সোমবার দিনব্যাপী সমুদ্রবিজ্ঞান বিষয়ক পোস্টার প্রদর্শনী ও শিক্ষার্থীদের বৈজ্ঞানিক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *