Saturday , May 26 2018
সর্বশেষ
Home / ক্যাম্পাস / গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভেটেরিনারি শিক্ষা – অগ্রযাত্রার ৩য় বছর

গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভেটেরিনারি শিক্ষা – অগ্রযাত্রার ৩য় বছর

অনিক আহমেদ, গণ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিঃ ভেটেরিনারি শিক্ষা সারা বিশ্বের মানব কল্যাণে গুরুত্বপুর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে সেই প্রাচীনকাল থেকে । মানুষের প্রয়োজনে আবিষ্কৃত ঔষধ, বিভিন্ন রোগ নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি, রোগ প্রতিষেধক টিকা এবং প্রতিকারের উপায় বের করতে ভেটেরিনারিয়াদের অবদান উল্লেখযোগ্য। পৃথিবীতে প্রাতিষ্ঠানিক ভেটেরিনারি শিক্ষার ইতিহাস খুব বেশি দিনের নয়। ১৭৬৬ সালে ফ্রান্সের লিয়ন শহরে পৃথিবীর প্রথম ভেটেরিনারি স্কুল প্রতিষ্ঠিত হয়। আমাদের এই উপমহাদেশে এ শিক্ষা চালু হয় ১৭৯০ সালে আর ১৯৪৭ সালে বাংলাদেশের কুমিল্লায় প্রথম ভেটেরিনারি কলেজ স্থাপিত হয়।

ভেটেরিনারি শিক্ষার জন্য ১১ টি বিশ্ববিদ্যালয়/কলেজ বাংলাদেশে রয়েছে।  একজন ভেটেরিনারিয়ান তথা ভেট হতে হলে যেকোন স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ৫ বছর মেয়াদী ডিভিএম অথবা বিএসসি ভেট সায়েন্স এন্ড এএইচ কোর্স করতে হয়। রাজধানী ঢাকার অদূরে অবস্থিত সাভারের গণ বিশ্ববিদ্যালয় নবম এবং একমাত্র বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে ২০১৬ সালের ৭ ই মে ভেটেরিনারি এন্ড এনিম্যাল সায়েন্সেস অনুষদের যাত্রা শুরু করে। উক্ত অনুষদের মাধ্যমে বিএসসি ভেট সায়েন্স এন্ড এএইচ ডিগ্রী প্রদান করা হয় যা ৫ বছর মেয়াদী। এই কোর্সে বাধ্যতামূলক ৬ মানের ইর্টার্ণশীপ রয়েছে। বর্তমানে এখানে ৪ টি ব্যাচ চলমান রয়েছে এবং এই মাসে (মে) আরো একটি ব্যাচের ক্লাস শুরু হবার কথা রয়েছে। প্রথম ব্যাচ ছাড়া প্রতিটা ব্যাচে আসন সংখ্যার সমান সংখ্যক (২৫) শিক্ষার্থী রয়েছে। অনুষদের শিক্ষকমন্ডলী পড়ালেখার ব্যাপারে অত্যন্ত যত্নশীল এবং যথেষ্ট আন্তরিক।

অনুষদের যাত্রা শুরু উপলক্ষ্যে সংবাদ সম্মেলন

গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে বিএসসি ভেট. সায়েন্স এন্ড এএইচ কোর্সের কারিকুলা এবং সিলেবাস বাংলাদেশ ভেটেরিনারি কাউন্সিলের শিক্ষা স্ট্যান্ডার্ড এবং দেশ বিদেশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিএসসি ভেট. সায়েন্স এন্ড এএইচ কোর্স অনুসরণ করে তৈরী করা হয়েছে। গত বছরের ৫ আগষ্ট গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে “বেসরকারী পর্যায়ে ভেটেরিনারি শিক্ষার প্রসার” শীর্ষক কর্মশালায় প্রাণীসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা: আইনুল হক এবং বাংলাদেশ ভেটেরিনারি কাউন্সিলের সভাপতি ডা: মঞ্জুর কাদির চৌধূরী গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি শিক্ষার কোর্স কারিকুলা দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেন।

বিএসসি ভেট. সায়েন্স এন্ড এএইচ কোর্সের শিক্ষার মানদন্ড সঠিক রাখার নিমিত্তে কোর্স কারিকুলা সুন্দরভাবে প্রণয়ন করা হয়েছে।  নিম্নবর্ণিত বিভাগের মাধ্যমে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে:

১। প্রি-ক্লিনিক্যাল বিভাগ

২। প্যারা ক্লিনিক্যাল বিভাগ

৩। ক্লিনিক্যাল বিভাগ

৪। এনিম্যাল প্রোডাকশন বিভাগ

অনুষদের প্রতিষ্ঠাতা ডীন হিসেবে অনুষদের উন্নয়নে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন অধ্যাপক ড. মোস্তাফিজার রহমান। তিনি হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ছিলেন এবং উক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি এন্ড এনিম্যাল সায়েন্সেস অনুষদের সাবেক ডীন হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের নবীনতম এই অনুষদের প্রতি অত্যন্ত যত্নশীল ছিলেন এবং দ্রুত উন্নয়নের জন্য বিশেষভাবে সহযোগিতা করেছেন। সম্প্রতি, অনুষদের প্রি-ক্লিনিক্যাল বিভাগের বিভাগীয় প্রধান হিসেবে নিযুক্ত করা হয়েছে অনুষদের প্রথম শিক্ষক ডা: মো: রিয়াজুল ইসলামকে। এছাড়া এনিম্যাল প্রোডাকশন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান হিসেবে নিযুক্ত হয়েছেন ডা: মো: আব্দুর রহমান।
গণ বিশ্ববিদ্যালয় ভেটেরিনারি পোল্ট্রি ফার্মের একাংশ

উদ্দেশ্যঃ

প্রতিযোগিতামূলক চাকুরির বাজারে যোগ্য ও দক্ষ ভেট তৈরী করা যারা প্রাণিসম্পদ ও পোল্ট্রি সেক্টরে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে সক্ষম হবে।

শিক্ষা কার্যক্রমঃ বছরে ২ বার শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয় এই বিশ্ববিদ্যালয়ে, মে মাসে শুরু হয় এক ব্যাচের ক্লাসের আর অপর ব্যাচের ক্লাস শুরু হয় অক্টোবরে ।  

ডিগ্রীর নাম: বিএসসি ভেট সায়েন্স এন্ড এনিম্যাল হাজবেন্ড্রি।

ডিগ্রীর মেয়াদকাল: ৬ মাস ইন্টার্ণশীপ সহ ৫ বছর।

কোর্স শিক্ষার মাধ্যম: ইংরেজী

ডিগ্রী প্রদানকারী অনুষদ: ভেটেরিনারি এন্ড এনিম্যাল সায়েন্সেস।

আসন সংখ্যা: ২৫

 

ভর্তির যোগ্যতাঃ

পদার্থ, রসায়ন ও জীববিজ্ঞান বিষয়সহ এইচএসসি-তে পাশ হতে হবে। নূন্যতম যোগ্যতা হিসেবে প্রার্থীকে এসএসসি ও এইচএসসিতে জিপিএ পৃথকভাবে ২.৫ পেতে হবে।

 

সুবিধাসমূহঃ

১। উন্নত যন্ত্রপাতি সমৃদ্ধ ভেটেরিনারি টিচিং হাসপাতাল। গত ৪ ই ফেব্রুয়ারি হাসপাতালের উদ্বোধন হয়।

২। প্রতিষ্ঠিত ডেইরী ও পোল্ট্রি খামার। ভেটেরিনারি অনুষদের সবচেয়ে বড় আকর্ষণ হিসেবে ধরা হয় খামারকে। সম্প্রতি, ইউজিসি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি অনুষদ পরিদর্শনে আসলে খামার দেখে অভিভূত হয়ে বলেন, “বাংলাদেশের যেকোনো বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি শিক্ষার্থীরা ইন্টার্ণশীপের জন্য এই ফার্মে আসতে পারে।” খামারটিকে আরো উন্নত করার জন্য উন্নয়নকাজ চলমান রয়েছে।

৩। আধুনিক যন্ত্রপাতি সমৃদ্ধ গবেষণাগার।

৪। সুসজ্জিত শ্রেণীকক্ষ, ইন্টারনেট সংযোগসহ কম্পিউটার ব্যবহারের সুবব্যস্থা।

৫। গুণগত মানসম্পন্ন ও প্রশিক্ষিত পূর্ণকালীন শিক্ষকমন্ডলী।

৬। দেশে বিদেশে ইন্টার্ণশীপের ব্যবস্থা।

৭। গবেষণার জন্য উন্নত পরিবেশ।

নবীন হিসেবে মাত্র দুই বছরে অনুষদের যে পরিমাণ উন্নয়ন সাধন হয়েছে তা অকল্পনীয়। এই উন্নয়ন নিজ চোখে না দেখলে বিশ্বাস করার মত নয়। এই উন্নয়নের পেছনে অবশ্যই ধন্যবাদ দিতে হবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ডা: লায়লা পারভীন বানু এবং রেজিস্ট্রার মো: দেলোয়ার হোসেনকে। যখনই তাদের কাছে অনুষদের উন্নয়নকল্পে কোনো কিছু চাওয়া হয়েছে, তারা বিষয়টি সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে দেখেছেন। তারা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন সভা-সেমিনারে ভেটেরিনারি শিক্ষার গুরুত্ব তুলে ধরেন এবং অনুষদের উন্নয়নে সর্বোচ্চ সহায়তার আশ্বাস দেন। নবীনতম এই অনুষদের প্রতি তারা যথেষ্ট আন্তরিক ছিলেন এবং এখনো আছেন। এছাড়া অনুষদের ডীন, বিভাগীয় প্রধানগণ, অন্যান্য শিক্ষকমন্ডলী, শিক্ষার্থীসহ সংশ্লিষ্টদের অবদান অনস্বীকার্য়।

ভেটেরিনারিয়োন হিসেবে যারা ক্যারিয়ার গড়তে চান, আসুন গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে; একজন দক্ষ ভেটেরিনারিয়ান হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলে দেশের প্রানিসম্পদের সেবায় নিজেকে আত্বনিয়োগ করুন এবং নিজের ভবিষ্যতকে উজ্জ্বল করুন।

About Editor

Check Also

বাকৃবিতে জুলাই-ডিসেম্বর সেমিস্টারে এম.এস. কোর্সে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে জুলাই-ডিসেম্বর সেমিস্টারে এম.এস. কোর্সে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে ।  গত ১৭ মে বিশ্ববিদ্যালয়ের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *