Saturday , May 26 2018
সর্বশেষ
Home / ক্যাম্পাস / পরমাণু বিজ্ঞানী ড. ওয়াজেদ মিয়ার ৯ম মৃত্যুবার্ষিকী’তে দোয়া ও আলোচনা সভা

পরমাণু বিজ্ঞানী ড. ওয়াজেদ মিয়ার ৯ম মৃত্যুবার্ষিকী’তে দোয়া ও আলোচনা সভা

নিউজ ডেস্কঃ হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী শিক্ষক পরিষদের উদ্যোগে বিশিষ্ট পরমাণু বিজ্ঞানী ড. এম. এ. ওয়াজেদ মিয়ার ৯ম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে বুধবার বিকাল ৩টায় ভেটেরিনারি অ্যান্ড এনিমেল সায়েন্স অনুষদের কনফারেন্স কক্ষে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত আলোচনা সভায় মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী শিক্ষক পরিষদের সভাপতি ও পোস্ট গ্রাজুয়েট স্টাডিজ অনুষদের ডিন প্রফেসর মো. মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম।

আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ডা. মো. ফজলুল হক । ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা বিভাগের সহকারী পরিচালক ড. মো. রাশেদুল ইসলাম এর সঞ্চালনায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অর্থনীতি বিভাগের চেয়ারম্যান ও সোস্যাল সায়েন্স অ্যান্ড হিউম্যানিটিস অনুষদের সাবেক ডীন প্রফেসর ড. ফাহিমা খানম, হিসাব শাখার পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. শাহাদাৎ হোসেন খান, প্রক্টর অধ্যাপক ড. মো. খালেদ হোসেন, বঙ্গবন্ধু হলের সহকারী হল সুপার মো.সাইফুদ্দিন দরুদ ।

অনুষ্ঠানে বিভিন্ন অনুষদ ও বিভাগের শিক্ষক শিক্ষিকাগন অংশগ্রহন করেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম বলেন, মানুষ তার কর্মের মাধ্যমে বেঁচে থাকে। প্রয়াত বিশিষ্ট পরমাণু বিজ্ঞানী ড. এম. এ ওয়াজেদ মিয়া দেশের জন্য যে অবদান রেখেছেন তার জন্যও মানুষ যুগ যুগ ধরে তাকে স্মরণ করবে। তিনি তার সাথে জড়িত ড. এম. এ ওয়াজেদ মিয়ার কিছু স্মৃতি চারণ করেন । তিনি যোগ করেন ১৯৭৫ সালের ১৫ ই আগস্ট আমাদের আজকের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা তার সাথে বিদেশে ছিলেন জন্যই ঘাতকদের হাত থেকে প্রাণে বেঁচে গিয়েছিলেন। তিনি আরও বলেন ড.এম.এ ওয়াজেদ মিয়া ক্ষমতার খুব কাছাকাছি থেকেও তিনি কখনো ক্ষমতার অপব্যবহার করেন নি, তিনি ছিলেন সাদা মাটা জীবন যাপনে অভ্যস্থ। আমাদেরও উচিত তার জীবনী থেকে শিক্ষা নিয়ে আমাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব গুলো যথাযথ ভাবে পালন করা । তাহলে মানুষ আমাদেরকেও স্মরণে রাখবে।

এরপর অনুষ্ঠানের সভাপতি প্রফেসর মো. মিজানুর রহমানের সমাপনী বক্তব্যের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষনা করেন। আলোচনা শেষে ড. এম. এ ওয়াজেদ মিয়ার রুহের মাগফেরাত কামনায় দোয়া করা হয় ।

About Editor

Check Also

বাকৃবিতে জুলাই-ডিসেম্বর সেমিস্টারে এম.এস. কোর্সে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে জুলাই-ডিসেম্বর সেমিস্টারে এম.এস. কোর্সে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে ।  গত ১৭ মে বিশ্ববিদ্যালয়ের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *