Sunday , July 22 2018
সর্বশেষ
Home / প্রথম পাতা / উৎপাদনশীল গাভী নির্বাচন পদ্ধতি

উৎপাদনশীল গাভী নির্বাচন পদ্ধতি

ডেইরী শিল্প বাংলাদেশের একটি সম্ভাবনাময় খাত। শিক্ষিত যুবকেরা পড়াশোনা শেষ করে চাকুরীর পেছনে না ছুটে অনেকেই ডেইরী ফার্মের দিকে ঝুকছেন। একটি ডেইরী ফার্মের সফলতা নির্ভর করে ভালো জাতের উৎপাদনশীল গাভী নির্বাচনের উপর। তাই ডেইরী ফার্মে উৎপাদনশীল গাভী নির্বাচন একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

অধিক উৎপাদনশীল গাভীর মধ্যে বিদেশী জাতের গাভীগুলো অন্যতম। বাংলাদেশের কিছু কিছু অঞ্চলে বিশেষ উৎপাদনশীল গাভী পরিলক্ষিত হয়। যেমনঃ চট্টগ্রামের লাল গরু, পাবনা জেলার গরু ও ফরিদপুর জেলার গরু।

নিচের দৈহিক বৈশিষ্ট্যগুলো দেখে উৎপাদনশীল গাভী সহজেই নির্বাচন করা যায়ঃ

মাথাঃ মাথা হালকা ও ছোট আকারের হবে। কপাল প্রশস্ত, চোখ উজ্জ্বল হবে। অধিক খাদ্য গ্রহণে আগ্রহী হবে।

দৈহিক আকারঃ দেহের সামনের দিক হালকা, পিছনের দিক ভারী ও সুগঠিত হবে, অন্যান্য অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সামঞ্জস্যপূর্ণ ও সুসংগঠিত হবে। দৈহিক আকার আকর্ষণীয় হবে। শরীরের গঠণ ঢিলা হবে।

পাঁজরঃ পাঁজরের হাঁড় সুস্পষ্ট অনুভব করা যাবে। হাঁড়ের গঠন সামঞ্জস্যপূর্ণ হবে।

চামড়াঃ চামড়া পাতলা হবে। চামড়ার নীচে চর্বির বাহুল্য থাকবে না। লোম মসৃন ও চকচকে হবে।

ওলানঃ গাভীর ক্ষেত্রে ওলান বড় ও সুগঠিত হবে ও দেহের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ হবে। পিছনের দুই পায়ের মধ্যবর্তী স্থান প্রশস্ত হবে। বাটগুলি একই আকারের হবে। ৪টি বাট সমান দূরত্বে ও সমান্তরাল হবে।

দুগ্ধশিরাঃ দুগ্ধ শিরা মোটা ও স্পষ্ট হবে। তলপেটে নাভীর পাশ দিয়ে দুগ্ধশিরা আঁকাবাঁকাভাবে বিস্তৃত থাকবে।

 

ডা. আবু নাছের, ডিভিএম (বশেমুরকৃবি)

About Abu Naser

Check Also

প্রাণিসম্পদের উপর জলবায়ুর পরিবর্তনজনিত প্রভাব

বাংলাদেশের জলবায়ু প্রতিনিয়তই পরিবর্তিত হচ্ছে। মাঝে মাঝে খুবই ঠান্ড এবং কখনো অত্যাধিক গরম হচ্ছে। যা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *