Tuesday , November 13 2018
Home / কৃষি গবেষনা / কাঁঠালের “আঠা ঝরা” রোগের কারণ ও প্রতিকার ব্যবস্থা

কাঁঠালের “আঠা ঝরা” রোগের কারণ ও প্রতিকার ব্যবস্থা

কাঁঠাল বাংলাদেশের জাতীয় ফল। কাঁঠালে প্রচুর পরিমানে শর্করা, আমিষ ও ভিটামিন এ পাওয়া যায়। এটি এমন একটি ফল যার কোন অংশই ফেলে দিতে হয় না (কোষ ও বীজ মানুষের খাদ্য ও বাকী অংশ পশু খাদ্য)। এ ফল কাঁচা ও পাকা উভয় অবস্থায় খাওয়া যায়। বাংলাদেশে উৎপাদনের দিক থেকে কলার পরেই কাঁঠালের স্থান। এ ফল অন্যান্য ফলের তুলনায় দামে কম হওয়ায় গরিব মানুষ সহজে খেতে পারে। কৃষকেরা এ ফলটি চাষ করতে গিয়ে গাছে কিছু রোগের সম্মুখীন হন। ফলে বিশাল অঙ্কের আর্থিক ক্ষতি হয়। রোগগুলো নিয়ন্ত্রনে রাখতে পারলে কাঁঠালের উৎপাদন অনেকাংশে বৃদ্ধি পাবে। কাঁঠালের একটি মারাত্মক রোগ ও তার প্রতিকার সম্পর্কে বর্ননা করা হল।

 

আঠা ঝরা (Stem bleeding) রোগ

 

রোগের কারণঃ সিরাটোসিসটিস প্যারাডোক্সা (Ceratocystis paradoxa) নামক ছত্রাকের আক্রমণে এ রোগ হয়ে থাকে।

রোগের বিস্তারঃ বর্ষাকালে রোগের প্রকোপ বেড়ে যায়। বাতাস, পানি ও পোকামাকড় দ্বারা এ রোগ ছড়ায়।

 

রোগের লক্ষণঃ

  • এই রোগের দ্বারা সাধারণত গাছের কান্ডও শাখাপ্রশাখা আক্রান্ত হয়।
  • আক্রান্ত গাছের কান্ড বা শাখাপ্রশাখার বাকলে ফাটল ধরে।
  • গাছের কান্ড বা শাখাপ্রশাখার কিছু কিছু জায়গা থেকে ক্ষুদ্র বিন্দুর মত হালকা বাদামী থেকে গাঢ় বাদামী রঙের আঠা বা রস বের হতে থাকে।
  • আক্রমণ বাড়ার সাথে সাথে কান্ড, ছোট অথবা বড় শাখাপ্রশাখার বিভিন্ন স্থান থেকে বেশী পরিমানে আঠা জাতীয় তরল পদার্থ নিঃসৃত হয়।
  • আক্রান্ত ডগা ও ডাল মারা যায়।
  • মারাত্মকভাবে আক্রান্ত গাছ অল্প দিনেই মারা যায়।

 

রোগের প্রতিকারঃ

  • বাগান পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে।
  • মরা রোগাক্রান্ত ডালপালা নিয়মিত ছাটাই করতে হবে।
  • গাছের গোড়া থেকে ১ মিটার দূরত্বে একটি গোলাকার গর্ত তৈরী করে তাতে এক সপ্তাহ পর পর কার্বেন্ডাজিম (যেমনঅটোস্টিন) প্রতি লিটার পানিতে ২ গ্রাম হারে মিশিয়ে প্রয়োগ করতে হবে।
  • আক্রান্ত স্থান চেঁছেফেলে দিয়ে সেই স্থানে বর্দোপেস্ট (প্রতি লিটার পানিতে ১০০ গ্রাম তুঁতে ও ১০০ গ্রাম চুন) লাগাতে হবে।
  • রোগ দেখা মাত্রই কার্বেন্ডাজিম (যেমনঅটোস্টিন) প্রতি লিটার পানিতে ২ গ্রাম হারে মিশিয়ে এক সপ্তাহ পর পর আক্রান্ত অংশে স্প্রে করতে হবে।

 

বিজ্ঞানী ড. কে, এম, খালেকুজ্জামান
উর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা (উদ্ভিদ রোগতত্ত্ব)
মসলা গবেষণা কেন্দ্র, বিএআরআই
শিবগঞ্জ, বগুড়া।
মোবাইলঃ ০১৯১১-৭৬২৯৭৮
ইমেইলঃ zaman.path@gmail.com

About Editor

Check Also

ব্ল্যাক বেঙ্গল জাতের ছাগলের পূর্ণাঙ্গ জিনোম সিকোয়েন্সিং সম্পন্ন

বাকৃবি প্রতিনিধি : প্রথমবারের মতো বিশ্বখ্যাত ছোট জাতের ছাগল ব্ল্যাক বেঙ্গলের পূর্ণঙ্গ জিনোম সিকোয়েন্সিং সম্পন্ন  করা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *