Saturday , September 22 2018
সর্বশেষ
Home / প্রথম পাতা / আমার ক্যাম্পাস / পবিপ্রবি’তে আনন্দ-উচ্ছ্বাসে কৃষি অনুষদের ১৫তম ব্যাচের গ্রাজুয়েশন সিরিমনি

পবিপ্রবি’তে আনন্দ-উচ্ছ্বাসে কৃষি অনুষদের ১৫তম ব্যাচের গ্রাজুয়েশন সিরিমনি

তাহজীব মন্ডল নিশাত, পবিপ্রবিঃ
পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (পবিপ্রবি) গান, আড্ডা আর উচ্ছ্বাসের মধ্য দিয়ে নানা আয়োজনে নতুন মাত্রায় দুই দিন ব্যাপী পালিত হলো কৃষি অনুষদের ১৫ তম ব্যাচের গ্রাজুয়েশন সিরিমনি।

ছবি সংগ্রাহক: সতেজ চাকমা

এই উপলক্ষে ৪ মার্চ সকাল ১০ টায় কৃষি অনুষদের সকল শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিতে কেক কেটে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন উক্ত অনুষদদের ডীন প্রফেসর ড. আবুল কাশেম চৌধুরী।

পরে এক বর্ণাঢ্য র‍্যালির আয়োজন করা হয়। র‍্যালিটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক অতিক্রম করে কেন্দ্রীয় মাঠে এসে শেষ হয়। এসময় শিক্ষার্থীরা রঙের খেলায় মেতে ওঠেন। শত রঙে রাঙ্গিয়ে তোলেন একে অপরকে।


পরে ক্যাম্পাসের সকলকে চমকিয়ে দিয়ে বিদায়ী শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহনে ফ্ল্যাশ মোবের আয়োজন করে। এসময় বিদায়ী শিক্ষার্থীরা নেচে-গেয়ে তাঁদের বিদায়ক্ষণকে স্মরণীয় করে তুলেছিলেন।

গ্রাজুয়েশন সিরিমনি উপলক্ষে ৫ মার্চ ক্যাম্পাসের কেন্দীয় মাঠে এক জমকালো অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। দুই পর্বের এই অনুষ্ঠানে প্রথমে থাকে ছাত্রছাত্রীদের মনোজ্ঞা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এর পরে কুঁড়েঘর ব্যান্ডের সাথে মেতে উঠে পবিপ্রবি ক্যাম্পাস।

বিদায়ী ব্যাচের প্রিয়মুখ মোহাইমিনুল ইসলাম মুনান Agriview24.com কে জানান, “অনার্স জীবনের শেষটা একটু আনুষ্ঠানিকতার মাধ্যমে স্মরণীয়ভাবে হোক তা কে না চায়। কৃষি অনুষদের গ্র‍্যাজুয়েশন সিরিমনি তেমনই একটি আয়োজন। পবিপ্রবি’র এই হারানো আয়োজনটি প্রায় দশ বছর পর আয়োজিত হয় ২০১৬ সালে ১৩তম ব্যাচের বিদায়ের মধ্য দিয়ে। যার স্পৃহা যুগিয়েছিলেন বিদায়ী ভাইয়া আপুরা এবং স্বার্থকতায় রূপ দান করেন ১৪তম শিক্ষার্থীরা তাদের নেতৃত্ব ও অন্যান্য ব্যাচের পৃষ্ঠপোষকতায়। তারই ধারাবাহিকতায় ২০১৭ সালে এবং এই বছর অনুষ্ঠিত হয়ে গেল শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের সবচেয়ে বড় আয়োজন। আমরা কৃষি অনুষদ ১৫তম ব্যাচ শুধুমাত্র কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে ছোট করতে চাইনা আয়োজক ১৬তম ব্যাচ এবং পৃষ্ঠপোষক ১৭,১৮ ও ১৯ তম ব্যাচের প্রতি। একসময়ের অসম্ভব এই আয়োজনকে আবারো বাস্তবে রূপ দিয়ে তোমরা প্রমান করে দিলে যে আমরা কৃষি অনুষদই শ্রেষ্ঠত্বের দাবীদার। বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের অমলিন ও অসীম স্মৃতির পাতার শেষ পৃষ্ঠাজুড়ে থাকবে তোমরাই।
জয়তু কৃষি অনুষদ, পবিপ্রবি।”

১৬ তম ব্যাচের প্রিয়মুখ সাকিব হোসেন বিপ্লব জানান, “ক্যাম্পাস লাইফে আগে অনেক প্রোগ্রাম করলেও নিজেদের মাথায় প্রেসার নিয়ে এত বড় প্রোগ্রাম করা এই প্রথম। তাই সেদিক দিয়ে এই প্রোগ্রাম এর অনুভূতি সম্পূর্ণ আলাদা। গত বছরের গ্রাজুয়েশন সিরিমনির প্রোগ্রামটা এত বড় ছিল যে তার জন্য একটা বাড়তি চাপ কাজ করছে। সিনিয়রদের অনুপ্রেরণা আর জুনিয়র দের সহযোগিতা সব মিলিয়ে সবার কাছে গ্রহণযোগ্য আর উপভোগ্য একটা অনুষ্ঠান দিতে পেরে আমি আর আমার ব্যাচ আনন্দিত। শুভকামনা রইলো কৃষি ১৫তম ব্যাচের বড় ভাইয়া ও আপুদের জন্য।”

১৬তম ব্যাচের আরেক শিক্ষার্থী নাজমুস সাকিব জানান, “কৃষি অনুষদ এর ১৫ তম ব্যাচ এর গ্রাজুয়েশন সেরিমনি উপলক্ষে আয়োজিত র‍্যালি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের অংশ হতে পেড়ে নিজেকে গর্বিত বোধ করছি,আমাদের বিশ্ববিদ্যালয় এর সবচেয়ে জাঁকজমক পূর্ণ অনুষ্ঠান আমাদের কৃষি অনুষদ এর গর্ব।”

১৭ তম ব্যাচের প্রিয়মুখ সোহানুর রহমান আমাদের জানান, “ভালোবাসার ক্যাম্পাসের মায়া ছেড়ে প্রতিবছর একটা ব্যাচ বেরিয়ে যায়, একটা ব্যাচ আসে হাজারো নতুন স্বপ্ন নিয়ে। এই আসা যাওয়ার ধারাবাহিকতার সবার সাথে যে ভালোবাসার সম্পর্ক তৈরি হয় তা হয়ে যায় চির অম্লান। কৃষি অনুষদের ১৫ তম ব্যাচের সকলের জন্য অনেক অনেক শুভ কামনা, আগামীর পথ চলা সুন্দর ও সফল হোক।”

১৭ তম ব্যাচের আরেক শিক্ষার্থী তুহিন রায়হান জানান, “যেতে নাহি দেব হায়, তবু যেতে দিতে হয়। কষ্ট যতই হোক না কেনো ভালোবাসার বন্ধন ছিন্ন করে না…
বিদায়ি ভাই আপুদের যতই বাহ্যিক দৃষ্টিকোণ থেকে হাত নেড়ে বিদায় দেই না কেন, মনে প্রাণে আমরণ শ্রদ্ধার আসনে, সুন্দর পথ চলার রাস্তায় হয়তো আপনাদের ই অনুসরণ করার চেষ্টা সামনের পথচলা আরও সুন্দর হোক। এই কামনায়।”

About Tahzib Mondal

Check Also

পবিপ্রবি বাঁধনের ছাত্রী হল শাখার উদ্যোগে বিনামূল্যে রক্তের গ্রূপ নির্ণয় কর্মসূচি

তাহজীব মন্ডল নিশাত, পবিপ্রবি: পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের সংগঠন বাঁধন এর কবি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *